বাসের নিচে চাপা পড়লো বাবার স্বপ্ন!

বাসের নিচে চাপা পড়লো বাবার স্বপ্ন!

মো. আবু কাওছার আহমেদ, টাঙ্গাইল ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৩৩ ৪ জুন ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বুক ভরা স্বপ্ন আর আশা নিয়ে একমাত্র ছেলেকে লেখাপড়া করাচ্ছিলেন বাবা। ছেলের পড়াশোনা শেষে মানুষের মতো মানুষ হয়ে পরিবারের হাল ধরবে। আগামী এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার কথা ছিল তার।

পরীক্ষার প্রস্তুতিও নিয়েছিল কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস। বাবার চোখের সামনেই মুহূর্তেই স্বপ্ন যেন দুঃস্বপ্নে পরিণত হলো।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুরের পাকুল্লা এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী মো. মাজেদুর রহমান নিহত হয়েছেন। তিনি টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার বারড়া ইউপির উরাডাব গ্রামের মো. শহীদুল ইসলামের ছেলে ও দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন এলাকায় অবস্থিত মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী ডিগ্রি কলেজের ব্যবসায়িক শাখার ছাত্র ছিলেন। 

মাজেদুর ইসলামের ভগ্নিপতি সোহেল রানা বলেন, একা হওয়ায় মাজেদুর সবার খুব আদরের ছিল। আমার শ্বশুর শহিদুল ইসলাম তাকে নিয়ে অনেক স্বপ্ন দেখেছিলেন। আগামী এইচএসসি পরীক্ষা তার অংশ নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়া হলো না তার। বৃহস্পতিবার সকালে ব্যবসায়িক কাজে শহিদুল ইসলামকে মোটরসাইকেলে নিয়ে কোনাবাড়ির দিকে যাচ্ছিলেন মাজেদুর। কিন্তু সড়ক দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়। এভাবে তাকে হারাতে হবে তা কখনো কল্পনাও করিনি। আমি বাসচালক, হেলপারের শাস্তি দাবি করছি।

গোড়াই হাইওয়ে থানার এসআই শহিদুল ইসলাম বলেন, পঞ্চগড় থেকে ছেড়ে আসা কনক পরিবহনের একটি বাস ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। মির্জাপুরের পাকুল্লা এলাকায় ওই মোটরসাইকেলটিকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এ সময় মোটরসাইকেলের চালক মাজেদুর বাসচাপায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন। এ ঘটনায় মাজেদুর রহমানের বাবা শহিদুল ইসলাম আহত হন। বাসটি থানা হেফাজতে নেয়া হয়েছে। মাজেদুরের মরদেহ আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে। 
 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম