Alexa বার ড্যান্সার সাথী হত্যা মামলায় স্বামীসহ গ্রেফতার ৩

বার ড্যান্সার সাথী হত্যা মামলায় স্বামীসহ গ্রেফতার ৩

গাজীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:১০ ২৬ জানুয়ারি ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

গাজীপুরের টঙ্গীর শিলমুন পূর্বপাড়া এলাকার বার ড্যান্সার সাথী হত্যায় জড়িত সন্দেহে স্বামীসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। শনিবার রাতে আশুলিয়ার জামগড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতাররা হলেন মামলার প্রধান আসামি ও নিহত সাথীর স্বামী সরোয়ার হোসেন বাবু, শাশুড়ি সালেহা বেগম ও ভাসুর সালাহ উদ্দিন। রোববার তিনজনকে গাজীপুর আদালতে পাঠানো হয়েছে।

র‌্যাব-১ সূত্রে জানা যায়, প্রায় এক বছর পূর্বে সারোয়ার হোসেন বাবুর সঙ্গে সাথীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই সরোয়ার হোসেন ও তার পরিবারের সদস্যরা সাথীর পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করেছিল। যৌতুকের টাকা না পেয়ে তারা একপর্যায়ে সাথীর ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। সাথীর বাবা সন্তানের সুখের কথা চিন্তা করে মেয়ের জামাইকে নগদ দুই লাখ টাকা দেয়। এরপরও বাকি টাকার জন্য সাথীর ওপর নির্যাতন চলতো। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় স্বামী, শ্বশুর, শাশুড়ি ও দেবর যৌতুকের বাকি টাকা এনে দেয়ার জন্য সাথীকে চাপ দিতে থাকে।

সে সময় সাথী তার পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তারা সাথীর উপর চড়াও হয় এবং ব্যাপক মারধর করে। নির্যাতনের একপর্যায়ে সাথীর স্বামী তার মা-বাবা ও ভাইয়ের সহযোগিতায় গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে পালিয়ে যায়। এ ঘটনায় নিহতের পিতা বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

এদিকে সরেজমিনে শিলমুন এলাকায় গিয়ে জানা যায়, প্রায় এক বছর পূর্বে টঙ্গীর জাভান হোটেলের বার ডান্সার সাথী আক্তারের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক তৈরি হয় শিলমুন এলাকার সারোয়ার হোসেন বাবুর। পরে তারা বিয়ে করেন। কিন্তু পূর্ব থেকেই বাবু বিবাহিত ও এক কন্যা সন্তান ছিলো। প্রথম স্ত্রী ও পরিবারকে না জানিয়ে বিয়ে করায় মেনে নিতে পারেনি বাবুর পরিবার। 

এ পরিস্থিতিতে বিয়ের পর থেকেই স্বামী সরোয়ার হোসেন ও তার পরিবারের সদস্যরা সাথীর বেপরোয়া চলাফেরা পছন্দ না করায় সংসারে কলহ সৃষ্টি হয়। এ নিয়ে প্রায়ই বাবুর সঙ্গে সাথীর কথা কাটাকাটি ও মারধরের ঘটনা ঘটতো।

এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই শুভ মন্ডলের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, শনিবার সাভারের আশুলিয়া থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। 


 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর