বাবার সম্পত্তির জন্য ভাইকে পিটিয়ে গাছে বাঁধলেন শিক্ষক

বাবার সম্পত্তির জন্য ভাইকে পিটিয়ে গাছে বাঁধলেন শিক্ষক

চাঁদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৪৪ ১১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:৫১ ১১ আগস্ট ২০২০

ছোট ভাইকে পিটিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়

ছোট ভাইকে পিটিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়

চাঁদপুরের হাইমচরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাইকে পিটিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন বড় ভাই। এমনই অভিযোগ উঠেছে উপজেলার চরভৈরবী হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মফিজুর রহমান বাবুলের বিরুদ্ধে। এ ঘটনার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়ালে মুহূর্তেই ভাইরাল হয়।

জানা গেছে, হাইমচর উপজেলার উত্তর চরবগুলা গ্রামের নোয়াব আলী সরদারের ছয় সন্তানের মধ্যে পাঁচজনই শিক্ষক। বাবার সম্পত্তি ভাগাভাগি না হওয়ায় ভাইদের মধ্যে বিরোধ চলছিল। এরমধ্যে অন্য ভাইয়েরা একত্রিত হয়ে ছোট ভাই মকবুল হোসেন রুবেলের ওপর প্রায়ই চড়াও হন। ৯ আগস্ট তাদের আরেক ভাই শফিকুর রহমানের নির্দেশে মফিজুর রহমান বাবুল সহযোগী নিয়ে রুবেলকে মারধর করেন। একপর্যায়ে ছোট ভাইকে বাড়ির আঙিনায় একটি গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখেন শিক্ষক বাবুল।

ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়লে ওই বাড়িতে প্রতিবেশীরা ছুটে যান। এ সময় নির্যাতনের শিকার রুবেলকে উদ্ধার করেন তারা। এছাড়া উপস্থিত অনেকেই দৃশ্যটি মুঠোফোনে ধারণ করেন।

নির্যাতিত মকবুল হোসেন রুবেল জানান, বাবার সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করেছেন তার অন্য ভাইয়েরা। এ নিয়ে কিছু বললেই তারা সংঘটিত হয়ে তার ওপর অমানবিক নির্যাতন ও মারধর করেন। মারধরের বিষয়ে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।

নির্যাতনের কথা স্বীকার করে বড় ভাই মফিজুর রহমান বাবুল বলেন, তার ছোট ভাই মানসিক সমস্যায় ভুগছেন। তাই সংশোধন করতে মাঝে মধ্যে তাকে শায়েস্তা করতে হয়।

চরভৈরবী ইউপি চেয়ারম্যান আহমেদ আলী মাস্টার বলেন, পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে আগামী দু-একদিনের মধ্যে বিষয়টি মীমাংসা করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর