বাবার ইচ্ছাপূরণে হেলিকপ্টারে বউ তুলে আনল ছেলে

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ২২:০১ ৫ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৩:৩৮ ৬ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাবার ইচ্ছা পূরণ করতেই হেলিকপ্টারে চড়ে এসে বিয়ে করে বউ নিয়ে গেলেন বর মো. উজ্জ¦ল মিয়া। মাদারীপুরের শিবচরের কাদিরপুর ইউপির ডিগ্রিরচর গ্রামের এই বিয়েকে কেন্দ্র করে বিয়েবাড়িসহ আশপাশের গ্রামজুড়ে ছিল উৎসব মুখর পরিবেশ। ছিল বাদ্যের ঝংকার, হরেক রকম খাবারের আয়োজন।

ডিগ্রিরচর গ্রামের প্রবাসী দেলোয়ার হোসেন চোকদারের একমাত্র মেয়ে সুমাইয়া আক্তার লিজার সঙ্গে শরিয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার বিলদেওয়ানিয়া গ্রামের ব্যবসায়ী মজিবুর রহমান মোল্লার একমাত্র ছেলে অ্যাডভোকেট মো. উজ্জল মিয়ার কাবিন হয়। গেল ২২ জুন মেয়ের নিজ বাড়িতেই বিয়ের কাবিনের অনুষ্ঠান হয়। উজ্জল পরিবারসহ ঢাকার লালবাগে বসবাস করেন।

তবে বরের মামা বাড়ি কনের বাড়ির পার্শ্ববর্তী হওয়ায় এ এলাকায় ছেলের যাতায়াত ছিল। ছেলের বাবার আগে থেকেই ইচ্ছে ছিল তার একমাত্র ছেলেকে হেলিকপ্টারে চড়ে শ্বশুর বাড়ি পাঠাবে ও ছেলের বউকে একইভাবে নিজের বাড়ি তুলে আনবে। বাবার ইচ্ছা পূরণে উজ্জল বুধবার দুপুরে প্রায় ২শ বরযাত্রীসহ কনেকে নিতে শিবচর আসে।

বরযাত্রীরা তিনটি বাসে চড়ে কনে বাড়ি আসলেও বর আসে হেলিকপ্টারে চড়ে। প্রত্যন্ত গ্রামে হেলিকপ্টারে বর আসাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। একাধিক গেটে ছিল বর-কনের ছবি সংবলিত ব্যানার। ছিল বাদ্যকার দলসহ নানান আয়োজন। বরযাত্রী ও গ্রামাবাসীদের আপ্যায়নেও ছিল ভিন্নতর সংযোজন। তবে এতসব আয়োজনেও কনের বাবা ছিল প্রবাসে।

প্রবাসে থেকেও বাবা তার একমাত্র মেয়ের বিয়ের আয়োজনে কোনো কমতি রাখেননি। যা প্রশংসা কুড়িয়েছে আগত সবার। ব্যতিক্রমধর্মী এ আয়োজন সামাল দিতে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জাহাঙ্গীর হোসেন ও থানা-পুলিশের টিম।

উজ্জল মিয়া বলেন, বাবার ইচ্ছা পূরণ করতেই বাংলা ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের হেলিকপ্টারটি ভাড়া আনা হয়। হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা দিয়ে এসে নববধূকে নিয়ে আবার সেখানেই ফিরে এসেছি।

কাদিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, হেলিকপ্টারে চড়ে এ বিয়েকে কেন্দ্র করে আমাদের গ্রামে সকাল থেকেই উৎসবমুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। বর নির্বিঘ্নে এসে নববধূকে নিয়ে নির্বিঘ্নেই ফিরে গেছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ