‘বাজেট ব্রিফকেস’ এর আদ্যোপান্ত

‘বাজেট ব্রিফকেস’ এর আদ্যোপান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:১৬ ১৩ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৯:৫৬ ১৩ জুন ২০১৯

‘বাজেট ব্রিফকেস’ হাতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল

‘বাজেট ব্রিফকেস’ হাতে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল

মহল্লার চা দোকান থেকে শুরু করে অফিস-সর্বত্রই চলছে জাতীয় বাজেট নিয়ে আলোচনা। কারণ আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে পেশ করা হবে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট। নতুন সরকারের নতুন অর্থমন্ত্রীর প্রথম বাজেট। বাজেট আড্ডায় কেউ যদি প্রশ্ন করে থাকে, বাজেট ঘোষনার দিন বাজেট পেশকারীর হাতে ‘‌লাল ব্রিফকেস’‌ থাকে কেন? জানা থাকলেই সে উত্তর দিয়ে হয়ে উঠতে পারেন ‘সাময়িক সবজান্তা’! চলুন ‘বাজেট ব্রিফকেসের’ আদ্যোপান্ত জানার চেষ্টা করি।

বাজেট কোথা থেকে এল, তা খুব সংক্ষেপে জেনে নেয়া যায় প্রথমেই। ফরাসি শব্দ বোওগেট থেকে বাজেট শব্দটি এসেছে। যার বাংলা অর্থ চামড়ার ব্যাগ। স্যার রবার্ট ওয়ালপোল ব্রিটেনের পার্লামেন্টে প্রথম জাতীয় বাজেট ও রাজস্বনীতি উত্থাপন করেন ১৭২০ সালে। এর ঠিক ১৩ বছর পর ওয়ালপোল সরকারের করের বোঝা কমাতে তার রাজস্ব পরিকল্পনায় বিভিন্ন ধরনের পণ্যের ওপর আবগারি শুল্ক ধার্য করার প্রস্তাব করেন। এতে সাধারণ জনগণ ক্ষুব্ধ হয়ে আন্দোলন করেন। এরপরই উইগ পিয়ার উইলিয়াম লিখেন ‘দ্য বাজেট ওপেন অর অ্যান আনসার টু এ প্যামফলেট’ শিরোনামের একটি পুস্তিকা। সেবারই সরকারের রাজস্বনীতিতে ‌‘বাজেট’ শব্দটি প্রথমবারের মতো ব্যবহার হয়েছে। কিন্তু, বাজেটের আনুষ্ঠানিক রূপ পায় ১৭৬০ সালে।

ভারতে ব্রিটিশ সরকারের প্রথম বাজেট বক্তৃতা দেন জেমস উইলসন এবং ১৮৬০-৬১ অর্থবছরের বাজেট পেশ করেন। দিনটি ছিল ১৮৬০ সালের ৭ এপ্রিল, কলকাতায়। এই উপমহাদেশে উইলসনই প্রথম গণতান্ত্রিক ওয়েস্ট মিনিস্টার টাইপের সরকার পদ্ধতির আওতায় সরকারের আয়-ব্যয় ব্যবস্থাপনার বাজেট পেশ করেন, যা আজও বিদ্যমান বাংলাদেশ এবং ভারতে।

আরো পড়ুন: একনজরে দেশের ৪৭টি বাজেট

ভারতীয় উপমহাদেশ ভাগের পর ১৯৪৮ সালের ১৬ মার্চ পূর্ববাংলা প্রদেশে প্রাদেশিক পরিষদের অধিবেশন বসে। জানা যায়, হামিদুল হক চৌধুরী সে অধিবেশনেই ১৯৪৮-৪৯ সালের বাজেট পেশ করেন। সেবারও ‘ব্রিফকেস রীতি’ মানা হয়েছিল। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম অর্থমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ প্রথম বাজেট উপস্থাপন করেন ১৯৭২ সালের ৩০ জুন। একই সঙ্গে ১৯৭১-৭২ ও ১৯৭২-৭৩ অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা করেছিলেন। তখনো তার হাতে ছিল ‘বাজেট ব্রিফকেস’।

প্রথা অনুযায়ী ‘‌লাল ব্রিফকেস’‌ হাতে নিয়ে বাজেট পেশকারী সংসদে প্রবেশের আগে চিত্রসাংবাদিকদের সামনে এসে ছবি তোলেন। দেখা গিয়েছে, এই রহস্যময় ব্রিফকেসের রঙ সবসময় লাল ছিল না, তা বছর বছর বদলেছে। কখনো কখনো কালো আবার কখনো মেরুন রঙেরও দেখা গিয়েছে। কিন্তু কেন এই ব্রিফকেসকেই বাজেটের প্রতীক হিসাবে ধরা হয়?‌ আগেই বলেছি, বাজেট মানে চামড়ার ব্যাগ।

রীতি অনুযায়ী অর্থমন্ত্রী এই বাজেট ব্রিফকেস বহন করে নিয়ে আসেন। এর ভেতরে থাকে বাজেট সম্পর্কিত বিভিন্ন ফাইল ও কাগজপত্র। সবচেয়ে বেশি বাজেট পেশকারী সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ও এম সাইফুর রহমানকেও এই ব্রিফকেস নিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে। এরমধ্যে আবুল মাল আবদুল মুহিতের হাতে মেরুন ও কালো রঙের ব্রিফকেস দেখা গিয়েছিল। এবার অর্থমন্ত্রী হিসেবে মুস্তফা কামালের প্রথম বাজেট। জানা গেছে, তিনিও ব্রিফকেস নিয়ে সংসদের প্রবেশ করবেন।

‘‌বাজেট ব্রিফকেস’‌র এই রীতি শুরু হয়েছিল ১৮ দশক থেকে। ব্রিটেনের বাজেট প্রধানকে এই ব্রিফকেস খুলে বাজেট বলতে বলা হত। ১৮৬০ সালে ব্রিটেনের বাজেট প্রধান উইলিয়াম ই গ্ল্যাডস্টোন লাল স্যুটকেসে করে বাজেট সংক্রান্ত নথি নিয়ে আসেন। সেই স্যুটকেসের ওপর সোনা দিয়ে রানির ছাপ দেয়া ছিল। তিনি পরে দেশের প্রধানমন্ত্রী হন। ওই একই ব্যাগ এরপর বহু সরকারের আমলেই ব্যবহার করা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে