Alexa বাঁচতে চান শাটলার রোমা

বাঁচতে চান শাটলার রোমা

প্রধানমন্ত্রীর দিকে তাকিয়ে তার পরিবার

ক্রীড়া প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫২ ২৫ আগস্ট ২০১৯   আপডেট: ১৭:১২ ২৫ আগস্ট ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

বাঁচতে চান শাটলার রোমা। সাবেক জাতীয় ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়, মহিলা দ্বৈত এবং মিশ্র দ্বৈতের জাতীয় চ্যাম্পিয়ন আশেদা খাতুন রোমা বর্তমানে ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত। নিজের সুস্থতার জন্য তিনি তাঁকিয়ে আছেন প্রধানমন্ত্রীর দিকে। 

ক্রীড়া পরিবারে জন্ম রোমার। বড় বোন সাবেক জাতীয় মহিলা একক ও দ্বৈত চ্যাম্পিয়ন নুরী। ছোট বোন ঝুমাসহ তিনি ৯০ দশকে ব্যাডমিন্টন মাঠ মাতিয়েছেন। খেলেছেন বাংলাদেশ বিমান ব্যাডমিন্টন দলে। একই পরিবারের তিন বোন জাতীয় পর্যায়ে ব্যাডমিন্টন খেলার রেকর্ড ক্রীড়াজগতে দ্বিতীয়টি নেই। 

তার বাবা এম ডি আমজাদ আলী বিকেএসপি’র অবসরপ্রাপ্ত বক্সিং কোচ। তার বড় ভাই আসাদুজ্জামান চন্দন জাতীয় হকি দলের সাবেক অধিনায়ক। খেলেছেন মেরিনার্স ও মোহামেডানে। 

ফুসফুস ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে চিকিৎসার জন্য স্রোতের মতো টাকা খরচ হচ্ছে। চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে তার পরিবার নিঃস্ব হওয়ার পথে। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বর্তমানে রোমা ভারতের মুম্বাইতে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

রোমার ভাই আসাদুজ্জামান চন্দন জানান, ‘আল্লাহ বাঁচানোর মালিক। তার পরও তো কারো উছিলা লাগে। আপনারা যারা আছেন তাদের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। আমার বোনকে বাঁচান। আমাদের পরিবারের সবাই ক্রীড়াবিদ। সেই পরিবারটি যদি অর্থকষ্টে চিকিৎসা করাতে না পারি তাহলে এই কষ্ট কাকে বলব। জানেন তো মধ্যবিত্ত মানেই আত্মসম্মানের ওপর ভর করে বেঁচে থাকা। টাকা-পয়সা সবই শেষ। উপায়ন্তর না দেখে বসতবাড়িটিও বিক্রি করতে হচ্ছে। পরে কোথায় থাকব জানি না। বর্তমানে বোনকে বাঁচাতে পরিবারের সবাই পাগলপ্রায়।’

বর্তমানে তিনি ভারতের মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে বোনের পাশে রয়েছেন। তিনি আরো যুক্ত করেন ‘বোনের ক্যান্সার স্টেজ থ্রিতে রয়েছে। ডাক্তার বলেছেন কেমোথেরাপিতে কাজ হবে না। ইনজেকশন দিতে হবে। খোঁজ নিয়ে দেখলাম ১০০ এমএল একটি ইনজেকশন এক লাখ ৮৫ হাজার রুপি। বাংলাদেশী টাকায় প্রায় আড়াই লাখ টাকা। আপাতত ডাক্তার দু’টির কথা বলেছেন। তা ছাড়া এখানে প্রতিদিনের ব্যয় তো রয়েছে। চিকিৎসা ব্যয় মেটানো সম্ভব হচ্ছে না। তার চিকিৎসার জন্য প্রায় কোটি টাকার প্রয়োজন। মেরিনার্সে খেলেছি। বাহফে সেক্রেটারি মুমিনুল হক সাঈদ পরোপকারী এবং সাহায্যের হাত বিশাল। উনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। মোহামেডানেও খেলেছি। সবার সহযোগিতায় বাঁচতে পারে আমার বোন।’ 

এলিনা (সিনিয়র), মমো, কণিকা, নুরী, দোলা, রোমা একই সময়ের খেলোয়াড়। একই সঙ্গে বিমানে ও জাতীয় দলে খেলেছেন। সাবেক জাতীয় চ্যাম্পিয়ন মোস্তফা জাভেদ ছিল তার মিশ্র দ্বৈত পার্টনার।  মহিলা দ্বৈতের সূর্য তরুণের হয়ে দোলা ও রোমা জাতীয় লিগে রানার্স আপ হয়েছিলেন।

রোমাকে সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা :

এম ডি আমজাদ আলী,

হিসাব নম্বর : ০৯২৩২০১০০০০৩১৩৫৪,

ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক লিমিটেড (ইউসিবিএল),

নবীনগর শাখা, আশুলিয়া, সাভার।

মোবাইল : ০১৭৪৬২৭০৬১৭

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএস