বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে সরকার

বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাচ্ছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৭:৫২ ১২ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৭:৫৭ ১২ আগস্ট ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সরকার খুব শিগগিরই দেশে বর্জ্য ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

বুধবার রাজধানীর উত্তরা কমিউনিটি সেন্টারে উত্তর সিটি কর্পোরেশনের অধীনে কোরবানি পশুর বর্জ্য অপসারণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করায় সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ তথ্য জানান।

উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

ঢাকাসহ সব সিটি কর্পোরেশন এবং ছোট বড় শহরে এমনকি গ্রামগঞ্জ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার উপর গুরুত্বারোপ করে মন্ত্রী বলেন, যেখানে সেখানে ময়লা না ফেলে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা আবর্জনা ফেলার পর এসব ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করে প্লান্টের মাধ্যমে বার্ন করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা হবে। এজন্য প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে।

শহর ও গ্রামাঞ্চলে পশু-পাখির মৃতদেহসহ ময়লা আবর্জনা যত্রতত্র না ফেলার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, মৃত পশু-পাখির দেহের অংশ ছড়িয়ে ও ছিটিয়ে থাকায় একদিকে যেমন এগুলো পচে বিভিন্ন রোগ-জীবাণু সৃষ্টি হয় অন্যদিকে মাটি, পানি ও বায়ু দূষণসহ সার্বিকভাবে পরিবেশ দূষিত হয়, যা জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এজন্য সচেতন নাগরিক হয়ে যেখানে সেখানে ময়লা না ফেলে নির্দিষ্ট স্থানে ফেলে পরিচ্ছন্ন নগরী তথা দেশ গড়তে হবে।

তিনি আরো বলেন, পরিচ্ছন্নকর্মীরাও মানুষ, তাদের প্রতি আমাদের আন্তরিকতা, সম্মান  এবং দায়িত্ব রয়েছে। তাদেরও উন্নত জীবন যাপনের স্বপ্ন দেখা এবং স্বপ্ন পূরণের অধিকার আছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তাদের বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধির পাশাপাশি বহুতল ভবন নির্মাণ করা হচ্ছে। সবাই উন্নত জীবনযাপনের সুযোগ পাবে।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় সারা জীবন আন্দোলন-সংগ্রাম করে গেছেন। সব মানুষ দেশের নাগরিক। মানুষ যাতে তাদের মৌলিক অধিকার পায় এই বিষয়টাকে বঙ্গবন্ধু আন্তরিকভাবে অনুধাবন করেছেন। বঙ্গবন্ধুর অনুধাবন থেকে শিক্ষা নিয়েই প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সকল পরিচ্ছন্নকর্মী থেকে শুরু করে খেটে খাওয়া মানুষদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বলেও জানান তিনি।

পবিত্র ঈদুল আজহায় কোরবানি পশুর বর্জ্য দ্রুত অপসারণ কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করায় পরিচ্ছন্নকর্মীসহ সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ এবং খাবারের আয়োজন করায় উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকে ধন্যবাদ জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, এটি খুবই ভালো এবং প্রশংসনীয় উদ্যোগ। যারা শহর পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে পরিবেশকে দূষণমুক্ত রাখে তাদের প্রতি সবার দায়িত্ব রয়েছে।

পরে মো. তাজুল ইসলাম পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের নিজে খাবার পরিবেশন করেন এবং তাদের সঙ্গে খাবার গ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএইচআর/এসআই