বন্ধুত্বের নিদর্শন স্বরূপ মানবিক ও ত্রাণ সহায়তা লেবাননে হস্তান্তর

বন্ধুত্বের নিদর্শন স্বরূপ মানবিক ও ত্রাণ সহায়তা লেবাননে হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১৫ ১১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৮:৫০ ১১ আগস্ট ২০২০

লেবাননের বৈরুতে সংঘটিত ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সি-১৩০জে পরিবহন বিমানের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য পাঠানো মানবিক ত্রাণ সহায়তা সামগ্রী লেবানন সরকারের প্রতিনিধির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়- আইএসপিআর

লেবাননের বৈরুতে সংঘটিত ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর সি-১৩০জে পরিবহন বিমানের মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য পাঠানো মানবিক ত্রাণ সহায়তা সামগ্রী লেবানন সরকারের প্রতিনিধির কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়- আইএসপিআর

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে সংঘটিত ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ১টি সি-১৩০জে পরিবহন বিমানের মাধ্যমে পাঠানো মানবিক ও ত্রাণ সহায়তা হস্তান্তর করা হয়েছে। 

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) সহাকারী পরিচালক রাশেদুল আলম খান এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, সোমবার বৈবরুতে বাংলাদেশ সরকারের পাঠানো জরুরি চিকিৎসা ও খাদ্য সামগ্রী আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ সরকার এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করা হয়। এ সময় লেবানন সরকারের প্রতিনিধি ও লেবাননে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মো. জাহাঙ্গীর আল মোস্তাহিদুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

বন্ধুপ্রতিম দেশসমূহে সংঘটিত যেকোন দুর্যোগে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে জরুরি ভিত্তিতে মানবিক ও ত্রাণ সহায়তা পৌঁছে দেয়া হয়। এরই ধারাবাহিকতায় বৈরুতে দুর্ঘটনা কবলিত প্রবাসী বাংলাদেশি, স্থানীয় জনগণ ও জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে নিয়োজিত বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সদস্যদের সহায়তা প্রদান করছে সরকার। এ জন্য জরুরি ত্রাণ ও চিকিৎসা সামগ্রীসহ একজন চিকিৎসক এবং নৌবাহিনী জাহাজের বাস্তব অবস্থা নিরূপণের জন্য একটি কারিগরি মূল্যায়নকারী দলকে বিমান বাহিনীর ১টি সি-১৩০জে পরিবহন বিমানের মাধ্যমে গত রোববার লেবাননে পাঠানো হয়। বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর ১২ সদস্যের এয়ার ক্রু এর সমন্বয়ে গঠিত এই মিশনের নেতৃত্বে ছিলেন গ্রুপ ক্যাপ্টেন শান্তনু চৌধুরী। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে বন্ধুত্বের নিদর্শন স্বরূপ পরিচালিত মানবিক ও ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমের ফলে লেবাননের সঙ্গে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সুসম্পর্ক আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসবি/এমআরকে