বধ্যভূমির নিরাপত্তা প্রাচীরে ফাটল

বধ্যভূমির নিরাপত্তা প্রাচীরে ফাটল

রুহুল আমিন সরকার, বদরগঞ্জ (রংপুর) ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:২২ ১৫ এপ্রিল ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

চার বছর যেতে না যেতেই রংপুরের বদরগঞ্জের রামনাথপুর ইউপির ঝাড়ুয়ারবিল বধ্যভূমিতে নির্মিত স্মৃতিস্তম্ভের নিরাপত্তা প্রাচীরে ফাটল ধরেছে। এছাড়া র‌েলিংয়ে মরিচা ধরে খসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। 

১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল এ বধ্যভূমিতে প্রায় দেড় হাজার নিরস্ত্র বাঙালিকে হত্যা করা হয়। স্বাধীনতার পর থেকে স্থানীয়ভাবে ওই দিনটিকে গণহত্যা দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে। স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ পরিবারের সদস্যসহ স্বাধীনতার পক্ষের রাজনৈতিক দলগুলোর দাবির প্রেক্ষিতে ২০১৪সালে সেখানে একটি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মিত হয়।

তবে উপজেলা প্রকৌশলী জানিয়েছেন স্মৃতিস্তম্ভ সংস্কারের জন্য ঠিকাদার নিয়োগ হয়েছে। কিন্তু তার হাতে সময় থাকায় তিনি সহসাই কাজ শুরু করতে চাইছেন না। এ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধাসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আইয়ুব আলী সরকার বলেন, স্মৃতিস্তম্ভ সংস্কারের জন্য গত অর্থবছরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় আট লক্ষাধিক টাকা প্রদান করেছে। 

মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের সাক্ষী ও বধ্যভূমি সংরক্ষণ কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক মেছের উদ্দিন বলেন, অনেক ত্যাগ ও সংগ্রামের বিনিময়ে অর্জিত ওই স্মৃতিস্তম্ভ। কিন্তু সেটিও আজ হুমকির মুখে। স্বাধীনতা বিরোধীদের ষড়যন্ত্র এখনো থেমে নেই। এ কারণে স্মৃতিস্তম্ভ রক্ষা করা তো দূরের কথা ১৭ এপ্রিল গণহত্যা দিবসটিও যথাযথভাবে পালন করা সম্ভব হচ্ছে না। 

রামনাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমি যতদূর জানি স্মৃতিস্তম্ভ সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত ওই স্মৃতিস্তম্ভের সংস্কার কেনো  হলো না তা বোধগম্য নয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকৌশলী মশিউর রহমান বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় থেকে প্রাপ্ত সাড়ে আট লাখ টাকার কাজ করতে ইতিমধ্যে টেন্ডার আহবান করা হয়েছে। কিন্তু হাতে সময় থাকায় ঠিকাদার কাজ করতে চাইছেননা।

এদিকে রংপুর-২ (বদরগঞ্জ-তারাগঞ্জ) আসনের এমপি আবুল কালাম মো. আহসানুল হক চৌধুরী ডিউক বিস্ময় প্রকাশ করে বলেন, টাকা থাকার পরেও স্মৃতিস্তম্ভ সংস্কার হচ্ছে না কেনো বিষয়টি বুঝতে পারছি না। তবে তিনি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস