ফুলশয্যার রাতে স্বামী-স্ত্রীর নামাজ ও দোয়া 

ফুলশয্যার রাতে স্বামী-স্ত্রীর নামাজ ও দোয়া 

সাদিকা আক্তার  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:২০ ২১ মার্চ ২০২০  

প্রত্যেক নব দম্পতির উচিত, বাসর রাতের গুরুত্বপূর্ণ সময়কে আনন্দ-উৎসবের নামে অবহেলা ও অনর্থক কাজে ব্যয় না করে। নামাজ ও দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর নিকট কল্যাণ কামনা করা উচিত

প্রত্যেক নব দম্পতির উচিত, বাসর রাতের গুরুত্বপূর্ণ সময়কে আনন্দ-উৎসবের নামে অবহেলা ও অনর্থক কাজে ব্যয় না করে। নামাজ ও দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর নিকট কল্যাণ কামনা করা উচিত

আল্লাহ তায়ালা প্রত্যেক নর ও নারীর ওপর বিয়ে ফরজ করেছেন। বিয়ের পরবর্তী সময়ে বাসর রাতে স্বামী-স্ত্রীর প্রথম সাক্ষাতে স্বামী তার স্ত্রীকে নিয়ে জামাতের সঙ্গে দুই রাকাত নামাজ আদায় করা উত্তম। এই দুই রাকাত নামাজ পড়া মুস্তাহাব। নামাজের পর নব দম্পতি পরস্পরের জন্য দোয়া করবে। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রা.) এর বর্ণনায় এ দোয়াটি তুলে ধরা হলো-

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা বারিক লি ফি আহলি ওয়াবারিক লাহুম ফিইয়্যা, আল্লাহুম্মাজ’মা বাইনানা মা জামা’তা বিখাইরিন ওয়া ফাররিক্ব বাইনানা ইযা ফাররাক্বতা ইলা খাইরিন। (আদাবুয যিফাফ, মুসান্নাফে আবদুর রাজ্জাক)।

অর্থ: ‘হে আল্লাহ! আমার জন্য আমার পরিবারে বরকত দান কর এবং তাদের স্বার্থে আমার মাঝে বরকত দাও। হে আল্লাহ! তুমি যা ভালো একত্রিত করেছো তা আমাদের মাঝে একত্রিত কর। আর যখন কল্যাণের দিকে বিচ্ছেদ কর তখন আমাদের মাঝে বিচ্ছেদ কর।’

সুতরাং প্রত্যেক নব দম্পতির উচিত, বাসর রাতের গুরুত্বপূর্ণ সময়কে আনন্দ-উৎসবের নামে অবহেলা ও অনর্থক কাজে ব্যয় না করে। নামাজ ও দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর নিকট কল্যাণ কামনা করা উচিত। 

আল্লাহ তায়ালা উম্মাতে মুসলিমাকে বাসর রাতে উত্তম আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে