ফাঁসির আগে জল্লাদ আসামির কানে কি বলে?

ফাঁসির আগে জল্লাদ আসামির কানে কি বলে?

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০৯:১২ ২৯ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ২২:৪৪ ৩০ এপ্রিল ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

বিভিন্ন দেশে অপরাধের সাজা বিভিন্ন রকম। আমাদের দেশে অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড। আর এই মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের কিছু পদ্ধতি আছে।

জানা গেছে, ফাঁসির দিন অপরাধীকে খুব ভোরে ঘুম থেকে তোলা হয় এরপর তাকে পছন্দের খাবার খাওয়ানো হয়। তারপর তাকে গোসল করানো হয়। এরপর ফাঁসির মঞ্চে নিয়ে যাওয়া হয়। ফাঁসি কার্যকরের সময় আসামির সবচেয়ে কাছে থাকে জল্লাদ। জল্লাদ প্রথমে আসামির কানের কাছে গিয়ে মুসলিম হলে সালাম দেয় আর হিন্দু হলে রাম রাম বলে।

এরপর জল্লাদ আসামির কাছে ক্ষমা চেয়ে নেন। আসামিকে কর্তব্যের কাছে তিনি বাঁধা বলেও জানিয়ে দেন। এরপর আসামির ফাঁসি কার্যকর করেন।

পৃথিবীর ৫৮ টি দেশে এখনও মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় এবং ৯৭ টি দেশ থেকে এটি বিলুপ্তপ্রায়। মৃত্যুদণ্ডের ইতিহাস বহু পুরানো। একসময়ে চকতি দিয়ে, সিদ্ধ করে, পুড়িয়ে, পাথর মেরে ক্রুশবিদ্ধ করে এমনকি হাতি দিয়ে পাড়িয়েও মৃত্যুদণ্ড দেয়া হতো। আস্তে আস্তে কালক্রমে মৃত্যুদণ্ড দেয়ার প্রথা সহজ হয়ে আসে। ফাঁসিতে ঝুলানো, গলাকাটা বা গিলোটিনের মতো পদ্ধতিগুলো আসে। আস্তে আস্তে এসব আরো আধুনিক রূপ পায়। যেমন ফাসির দড়িতে ঝুলিয়ে আগে পায়ের নীচের টুল সরিয়ে ফেলা হত। আর এখন অনেক উপর থেকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে ছেড়ে দেয়া হয় তাতে সঙ্গে সঙ্গেই আসামির মৃত্যু হয়। 

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ/আরএম/এসআই