ফরিদপুর হাসপাতালে অনিয়ম, শেষ হলো সংসদীয় কমিটির তদন্ত

ফরিদপুর হাসপাতালে অনিয়ম, শেষ হলো সংসদীয় কমিটির তদন্ত

ফরিদপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০১:০৫ ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ফরিদপুর হাসপাতালে সংসদীয় কমিটির সদস্যদের তদন্ত (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

ফরিদপুর হাসপাতালে সংসদীয় কমিটির সদস্যদের তদন্ত (ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ)

পর্দা কেলেঙ্কারিসহ ২০১২ সাল ২০১৬ পর্যন্ত ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিভিন্ন কাজের তদন্তে গঠিত সংসদীয় কমিটি তাদের তদন্ত কার্যক্রম শেষ করেছে।

তদন্তের দ্বিতীয় দিনে বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে দফায় দফায় বিভিন্ন ক্রয় কমিটিসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের মতামত গ্রহণ করা হয়েছে। এরপর দুপুর আড়াইটার দিকে কমিটির সদস্যরা ফরিদপুর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন।

একাদশ জাতীয় সংসদের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটি কর্তৃক গঠিত এক নম্বর সাব-কমিটির এ তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক হলেন এমপি মুহিবুর রহমান মানিক (সুনামগঞ্জ-৫)। অপর সদস্যরা হলেন, সাংসদ আ ফ ম রুহুল হক (সাতক্ষীরা-৩), মনসুর রহমান (রাজশাহী-৫), মো. আব্দুল আজিজ (সিরাজগঞ্জ-৩), সৈয়দা জাকিরা নূর (কিশোরগঞ্জ-১) এবং অতিরিক্ত সচিব স্বাস্থ্য বিভাগ (এফএন্ডপিআর) স্বপন বড়াল।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এই কমিটির সদস্যরা গত বুধবার ফরিদপুরে আসেন। ওইদিন বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ পরিদর্শন করেন। ওই সময় কমিটির সদস্যরা বহুল আলোচিত সিসিইউ ইউনিটসহ ক্রয়কৃত বিভিন্ন যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম ঘুরে ঘুরে দেখেন।

গতকাল তদন্ত কমিটির সদস্যরা বাজার দর ক্রয় কমিটি, মূল্যায়ন কমিটি, সার্ভে কমিটি, কারিগরি কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন। এছাড়া ওই সময়কালে (২০১২-২০১৬) এ হাসপাতালের পিডি হিসেবে যারা কর্মরত ছিলেন তাদের বক্তব্য লিপিবন্ধ করেছেন। তারা হলেন, আসম জাহাঙ্গীর চৌধুরী, গণপতি বিশ্বাস, শামসুল আলম, আবুল কালাম আজাদ ও কামদা প্রসাদ সাহা।

তদন্ত কাজ পরিচালনা করে ফরিদপুর ত্যাগের আগে এ কমিটি কিংবা কমিটির কোনো সদস্য সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলেন নি। 

ওই কমিটির সদস্য অতিরিক্ত সচিব স্বাস্থ্য বিভাগ (এফএন্ডপিআর) স্বপন বড়াল বলেন, আমার দুই দিনব্যাপী  তদন্ত কাজ করেছি। এ তদন্ত একটি দীর্ঘ প্রক্রিয়ার অংশ। প্রাথমকিভাবে এসেছি, দেখেছি, তথ্য সংগ্রহ করেছি। তদন্ত শেষে আমরা প্রতিবেদন যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট জমা দেব।

গত বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কমিটির সদস্যরা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রাঙ্গনে এসে পৌঁছালে ডিপ্লোমা ইন নাসিং সাইন্স অ্যান্ড মিডওয়াফি ও ডিপ্লোমা ইন মিডওয়াফির চার শতাধিক শিক্ষার্থী এবং ওই হাসপাতালের কর্তব্যরত স্টাফ নার্সরা তদন্ত কমিটির সদস্যদের স্বাগত জানান।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম