প্রিয়জনকে দেখতে চাইলে দিতে হবে প্রমাণ

প্রিয়জনকে দেখতে চাইলে দিতে হবে প্রমাণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:০৬ ৯ আগস্ট ২০২০  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

সরকারী নিষেধাজ্ঞার কারণে ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরে থাকা প্রিয়জনকে এতদিন জার্মানিতে ভ্রমণের আমন্ত্রণ জানাতে পারছিলেন না দেশটিতে বসবাসরতরা। করোনাভাইরাসের কারণে গত মার্চে জারি করা এই সরকারি নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয় শুক্রবার। এখন ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাইরে তৃতীয় কোনো দেশে থাকা নারী-পুরুষরাও তাদের প্রেমিক-প্রেমিকাকে দেখতে জার্মানি আসতে পারবেন।

ডয়চে ভেলে’র এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, আগামী সোমবার থেকে এ নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। এর ফলে কয়েকমাসের দীর্ঘ বিচ্ছেদের পর যুগলরা তাদের বন্ধু বা বান্ধবীর সঙ্গে মিলিত হতে পারবেন। তবে এর সঙ্গে একটি শর্ত জুড়ে দিয়েছে জার্মান সরকার। তা হল, এই নারী-পুরুষদের তাদের যুগলত্বের প্রমাণ দিতে হবে।

এর আগে সরকারের নেয়া সিদ্ধান্তের পর ইন্টারনেটে এর সমালোচনা শুরু হয়। পরে ‘লাভ ইজ নট ট্যুরিজম’ বা ‘ভালোবাসা মানে পর্যটন নয়’ এমন একটি প্রচারণা শুরু হয়। সেখানে এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন ভুক্তভোগী ও নেটিজেনরা। এর ফলে জার্মান সরকারের এমন সিদ্ধান্তের প্রবল সমালোচনা শুরু হয়। প্রতিবাদের জের ধরে ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকেও চাপ আসে। এসব চাপের মুখে অবশেষে নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেয় সরকার।

অবিবাহিত সঙ্গীদের মধ্যে করোনায় উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ কোনো দেশে বসবাসকারীরাও আসতে পারবেন। তবে তাদের পরীক্ষা ও করোনা নেগেটিভ না আসা পর্যন্ত বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। আর লম্বা সময়ের যুগলত্বের প্রমাণ হিসেবে কর্তৃপক্ষের কাছে আগে জার্মানিতে কিংবা বাইরে  ব্যক্তিগত সাক্ষাতের প্রমাণ দেখাতে হবে।

এছাড়া জার্মানির সব রাজ্যের নিজস্ব কিছু কোয়ারেন্টাইন ও করোনা সংক্রান্ত অন্যান্য বিধি রয়েছে। সেই বিধিগুলোও মেনে চলতে হবে।

এর বাইরে জার্মানিতে অবস্থানরত ব্যক্তি তার সঙ্গীকে একটি আনুষ্ঠানিক ভ্রমণ আমন্ত্রণ পাঠাতে হবে। এছাড়াও যুগলকে একটি যৌথ ঘোষণায় স্বাক্ষর দিতে হবে যে তাদের মধ্যে সম্পর্ক আছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ