প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছে লক্ষ্মীপুরের ১০ হাজার পরিবার  

প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাচ্ছে লক্ষ্মীপুরের ১০ হাজার পরিবার  

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:২৭ ১ মে ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের উদ্যোগে ১০ হাজার কর্মহীন হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হবে। ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ওই খাদ্য সহায়তা দেয়ার প্রস্তুতি চলছে। এজন্য ১৪ সদস্য বিশিষ্ট ত্রাণ কমিটি গঠন করা হয়েছে। 

প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার নির্দেশনা অনুযায়ী কর্মহীন হয়ে পড়া দিনমজুরদের খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী দেয়ার উদ্যোগ নিয়েছেন লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান। 

মে মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে লক্ষ্মীপুর জেলার বিভিন্ন এলাকার হতদরিদ্রদের মাঝে জেলা পরিষদের সদস্য এবং ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সমন্বয়ে তালিকা করে এসব খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করা হবে।

বৃহস্পতিবর এসব খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী প্যাকেজিং কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান। 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সফিউজ্জামান ভূ্ঁইয়াসহ জেলা পরিষদের সদস্যরা।  

জানা যায়, জেলা পরিষদের সদস্য ও ইউপির চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সমন্বয়ে হতদরিদ্রদের তালিকা করা হয়েছে। এতে নির্দেশনা দেয়া আছে যেসব হতদরিদ্র পরিবার আগে পেয়েছেন তাদেরকে বাদ দিয়ে এখনো পর্যন্ত খাদ্য সহয়তা পাইনি তাদেরকে অগ্রাধিকার দিয়ে তালিকা প্রণয়ন করার জন্য। 

জেলা পরিষদের সদস্য এবং পাঁচটি উপজেলার ইউপির চেয়ারম্যান-মেম্বারদের মাধ্যমে তালিকা সংগ্রহ করে ১০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী বিতরণ করবে জেলা পরিষদ। এতে প্রতি পরিবারকে চাল, ডাল, ছোলা, সয়াবিন তেল, চিনি, মুড়ি, দুধ, খেজুরসহ খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী দেয়া হবে। 

জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান জানান, ২-৩ দিনের মধ্যে খাদ্যগুলো হতদরিদ্র পরিবারের কাছে পৌঁছে দেয়া হবে। প্রত্যেকটি পরিবারকে চাল, ডাল, ছোলা, সয়াবিন তেল, চিনি, মুড়ি, দুধ, খেজুরসহ খাদ্য ও ইফতার সামগ্রী দেয়া হবে। এদিকে হতদরিদ্র পরিবারকে সহযোগিতা করার জন্য লক্ষ্মীপুর জেলা পরিষদের সদস্য সাখাওয়াত হোসেন আরিফ ও মামুন বিন জাকারিয়া তাদের এক মাসের সম্মানি ভাতা জেলা পরিষদের সরকারি ত্রাণ তহবিলে দান করেছেন। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ