প্রতি ফরম্যাটে অভিষেকেই কাঁপিয়ে দেয়ায় সেরা যারা

প্রতি ফরম্যাটে অভিষেকেই কাঁপিয়ে দেয়ায় সেরা যারা

আসাদুজ্জামান লিটন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:১৯ ৫ জুন ২০২০  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ক্রিকেট খেলার ইতিহাস বহু পুরনো হলেও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ইতিহাস সে তুলনায় বেশি দিনের নয়। ১৮৭৭ সালে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের ম্যাচ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের যাত্রা শুরুর পর এখন পর্যন্ত হাজার হাজার ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এসব ম্যাচে অভিষেক হয়েছে অসংখ্য ক্রিকেটারের। তবে একদম প্রথম ম্যাচেই আলো ছড়াতে পেরেছেন খুব কম ক্রিকেটার। 

প্রত্যেক ক্রিকেটারেরই অভিষেকে স্মরণীয় কিছু করার স্বপ্ন থাকে। ব্যাটসম্যানদের স্বপ্ন থাকে সেঞ্চুরি করবেন, বোলারদের ইচ্ছে থাকে ইনিংসে পাঁচ উইকেট শিকার করবেন বা এমন কিছু। তবে তা পূরণ করতে পেরেছেন খুব কম ক্রিকেটার। 

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে ব্যাটিং ও বোলিংয়ে অভিষেকেই দারুণ পারফর্ম করা ক্রিকেটারদের মাঝে সবচেয়ে সেরা ফিগার কেমন? কোন দলের বিপক্ষে করেছিলেন এই কীর্তি? সেসব উত্তর নিয়ে এবারের আয়োজন। 

টিপ ফস্টারক্রিকেটের সবচেয়ে মর্যাদার ফরম্যাট বলা হয় টেস্ট ফরম্যাটকে। এলিট ফরম্যাটে অভিষেকের সেরা পারফরম্যান্সে ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই জড়িয়ে আছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার নাম। ১৯০৩ সালের অ্যাশেজ সিরিজে অভিষেকেই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২৮৭ রানের এক স্মরণীয় ইনিংস খেলেছিলেন  ইংলিশ ব্যাটসম্যান টিপ ফস্টার। এটিই এখন পর্যন্ত টেস্ট অভিষেকে সর্বোচ্চ ইনিংস। 

আলবার্ট ট্রটইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৮৯৫ সালের অ্যাশেজে মাত্র ৪৩ রানে ৮ উইকেট শিকার করেছিলেন আলবার্ট ট্রট। টেস্ট অভিষেকে এটাই কোনো বোলারের সেরা পারফরম্যান্স।

টেস্ট ক্রিকেটের আবেদন কমে যাওয়ায় আবির্ভাব হয় ওয়ানডে ক্রিকেটের। এই ফরম্যাটে অভিষেক ইনিংসটা ব্যাট হাতে সবচেয়ে ভালোভাবে রাঙিয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ডেসমন্ড হেইনস। ১৯৭৮ সালে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১৪৮ রানের ইনিংস খেলেছিলেন এই ক্যারিবীয় ক্রিকেটার। 

ডেসমন্ড হেইনস ও কাগিসো রাবাদাওয়ানডে ফরম্যাটে অভিষেক সেরা বোলিং ফিগারের কথা আসলেই উঠে আসবে বাংলাদেশের নাম। তবে শিকারী নয়, দক্ষিণ আফ্রিকার ফাস্ট বোলার কাগিসো রাবাদার শিকার হয়েছিলেন টাইগার ব্যাটসম্যানরা। ২০১৫ সালে মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে রাবাদার বোলিং তোপে একপ্রকার উড়ে গিয়েছিল বাংলাদেশ। সেই ম্যাচে মাত্র ১৬ রানে ৬ উইকেট শিকার করেছিলেন প্রোটিয়া ফাস্ট বোলার। 

ক্রিকেটের আধুনিকতম সংস্করণ টি-টোয়েন্টি। মারকাটারি ঘরানার ক্রিকেটে ব্যাট হাতে নিজের প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচে সর্বোচ্চ রান করেছেন অস্ট্রেলিয়ার রিকি পন্টিং। ২০০৫ সালে ক্রিকেট ইতিহাসের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৯৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেছিলেন পন্টিং। দেড় দশক পেড়িয়ে গেলেও এখনো তার রেকর্ডটি কেউ ভাঙতে পারেনি। 

রিকি পন্টিং ও ইলিয়াস সানিওয়ানডে অভিষেকে সেরা বোলিং ফিগারে প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশের নাম থাকায় মন খারাপ হলে আপনার মন ভালো হতে পারে টি-টোয়েন্টির কথা শুনলে। কারণ এই ফরম্যাটে সেরা বোলিং ফিগারের অধিকারী এক বাংলাদেশি। ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের মাটিতে অভিষেকেই মাত্র ১৩ রান দিয়ে পাঁচ উইকেট শিকার করেছিলেন টাইগার বোলার ইলিয়াস সানি। এখন পর্যন্ত ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ততম ফরম্যাটে অভিষেকেই সেরা বোলিং ফিগার এটি। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল