পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে ভারত

পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৫৪ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৬:৫৫ ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পেঁয়াজ রফতানির নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত সরকার। বাম্পার ফলনের পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। 

বুধবার দেশটির খাদ্য ও ভোক্তাবিষয়ক মন্ত্রী রাম বিলাস পাসোয়ান এক টুইট বার্তায় জানান, গত বছরের তুলনায় মার্চে ৪০ লাখ টন বেশি পেঁয়াজ উৎপাদনের আশা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয়া হলে কৃষকেরা ভালো দাম পাবেন। 

মন্ত্রী বলেন, দাম এখন স্থিতিশীল হয়েছে। ফসলের পরিমাণও প্রচুর। এখন পেঁয়াজের ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকলে তা দামকে চাপে ফেলবে।

ছবি: সংগৃহীত

দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, বেশির ভাগ খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম প্রতি কেজি ৩০ থেকে ৪০ রুপিতে নেমে এসেছে। বাম্পার ফলনের কারণে দাম আরো কমতে পারে। এ সময় রফতানি করলে কৃষকেরা ভালো দাম পাবেন।

গত ২৯ সেপ্টেম্বর পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ ঘোষণা করে ভারত। ভারতের বাজারেই সে সময় প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিল ১০০ রুপি। ভারত সরকার মজুতের ওপর সীমাবদ্ধতা আরোপ করে। দাম নিয়ন্ত্রণে মিসর, আফগানিস্তান ও তুরস্ক থেকে পেঁয়াজ আমদানি করেছিল।

বাংলাদেশ আমদানির ক্ষেত্রে ভারতের ওপরই নির্ভরশীল। ফলে, দেশের বাজারে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়তে থাকে। তখন দুই দিনের মধ্যে কেজিতে ৪০ থেকে ৫০ টাকা বেড়ে ১০০ টাকা ছাড়ায় দেশি পেঁয়াজের দাম। ভারতীয় পেঁয়াজও বিক্রি হতে থাকে ১০০ টাকার কাছাকাছি দরে। অবশ্য বাজার তদারকি ও হুজুগ শেষের পর দাম আবার কিছুটা কমে। তবে আবার লাগামহীন হয়ে পড়েছে পেঁয়াজের দাম। একপর্যায়ে এক কেজি পেঁয়াজ ২৫০ টাকাতেও কেনেন গ্রাহকেরা। পরে বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি ও উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম কিছুটা কমে আসে।

ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্যমতে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন বাজারে প্রতি কেজি দেশি পিয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ৯০ টাকায়। আমদানি করা পিয়াজের দাম প্রতি কেজি ৭০ থেকে ১০০ টাকা।

ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়া ও দ্য ইকোনমিক টাইমস জানিয়েছে, রবি মৌসুমে ভারতে পিয়াজের বাম্পার ফলন হয়েছে। আর এই বেশি ফলনের কারণে পিয়াজের দাম কম। গত বছরের মার্চে ২৮ দশমিক ৪ লাখ মেট্রিক টন পিয়াজ উৎপাদিত হয়েছে, সেখানে এ বছর ৪০ লাখ টনের বেশি পিয়াজ আসার সম্ভাবনা রয়েছে। এইজন্য কৃষকের ন্যায্য মূল্য পেতে রফতানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএএইচ