Alexa পেঁয়াজে ঝুঁকছেন চাষিরা

পেঁয়াজে ঝুঁকছেন চাষিরা

তবিবর রহমান, যশোর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:১৫ ২২ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পেঁয়াজ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে আলোচনা। ৩০-৪০ টাকা কেজির পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে ২০০-৩০০ টাকায়। এ পরিস্থিতে বেশি দাম পেতে যশোরে পেঁয়াজ চাষে ঝুঁকছেন চাষিরা। অনেক চাষি গতবারের চেয়ে চলতি মৌসুমে দুই-তিন গুণ বেশি জমিতে পেঁয়াজ চাষ করছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্যমতে, গত বছর এক হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষ হয়েছে। এবার লক্ষ্যমাত্রা এক হাজার ৪৫০ হেক্টর। তবে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি জমিতে চাষ হবে বলে জানিয়েছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের কর্মকর্তারা।

সদর উপজেলার সাতমাইল এলাকার সিরাজুল, সাহেব আলীসহ অনেকে জানান, তাদের এলাকার কৃষকরা সবজি চাষ করেন। কিন্তু এবার অনেকে পেঁয়াজ চাষ করছেন। এ এলাকার শাহাদাত হোসেন গতবার পাঁচ কাঠা জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছেন। এবার সেখানে তিনি ৪০ কাঠা জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেন।

চুড়ামনকাটি এলাকারও একই চিত্র। সেখানকার মাঠে অনেক চাষি এবার পেঁয়াজ চাষ করেছেন। কেউ কেউ দু-একদিনের মধ্যেই চাষের কাজ শেষ করবেন।

চুড়ামনকাটি ইউপির উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা জহুরুল ইসলাম জানান, পোলতাডাঙ্গা গ্রামের রফিকুল ইসলাম, আব্দুল মান্নান ও রবিউল ইসলাম এক বিঘা জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছেন। এছাড়া আব্দুলপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেন, আজিজুল ইসলাম ও নাজমুল ইসলাম চাষের জন্য বীজতলা তৈরি করেছেন।

সদরের দেয়াড়া ইউপির আলমনগর গ্রামের হেলাল উদ্দিন বলেন, এবার পাঁচ কাঠা জমিতে কাঠ পেঁয়াজ করেছি। খাওয়ার জন্য কিছু রেখে বাকিগুলো বিক্রি করবো। লাভ হলে ভাতি পেঁয়াজ চাষ করবো।

বাঘারপাড়া উপজেলার পুকুরিয়া গ্রামের কৃষক আব্দুস সাত্তার বলেন, সরকারের কাছ থেকে এক কেজি পেঁয়াজের বীজ পেয়েছি। এক বিঘা জমিতে বীজতলা তৈরি করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে চারা রোপণ করা হবে। এবার কৃষকরা পেঁয়াজের দাম ভালো পাবেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক ইমদাদ হোসেন শেখ বলেন, যশোরে বাণিজ্যিকভাবে পেঁয়াজের চাষ খুব একটা হয় না। বেশিরভাগ কৃষক সারা বছরের প্রয়োজন মেটাতেই পেঁয়াজ চাষ করেন। তবে বেশি দামের আশায় এবার যশোরের কৃষকরা পেঁয়াজ চাষে উদ্বুদ্ধ হয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর