পুলিশ দেখেই দৌড়ে পালালেন বর

পুলিশ দেখেই দৌড়ে পালালেন বর

নান্দাইল (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:২৫ ৮ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৩:২৮ ৮ আগস্ট ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বাল্যবিয়ে পড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন কাজী। খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হন ইউএনও। আর তাদের দেখেই ভোঁ দৌড় দেন বরসহ তার সঙ্গে আসা লোকজন।

এ সময় পুলিশের হাতে ধরা পড়েন কনের ভ্যানচালক বাবা।

শুক্রবার বিকেলে ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার জাহাঙ্গীরপুর ইউপির দেউলডাঙ্গারা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, জামাল উদ্দিনের মেয়ে খাদিজা আক্তার স্থানীয় একটি মাদরাসায় নবম শ্রেণিতে পড়ে। খাদিজা বিয়েতে রাজি না হলেও তার সঙ্গে বিয়ে ঠিক করা হয় পাশের হাড়িয়াকান্দি গ্রামের গিয়াস উদ্দিনের ছেলে আমিনুল ইসলামের। শুক্রবার বিয়ের দিনে গেইট প্যান্ডেল তৈরিসহ যাবতীয় আয়োজন করা হলে ইউএনও এরশাদ উদ্দিন খবর পেয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যকে জানিয়ে ওই বাল্যবিবাহ বন্ধ করতে বলেন। কিন্তু মেয়ের বাবা তা শুনেন নি।  

পরে ইউএনও কনের বাড়িতে গিয়ে বরের সন্ধান করা মাত্রই বরসহ অন্যরা বিপদ বুঝে পালিয়ে যান। এ সময় কনের ইউপি চেয়ারম্যানের স্বাক্ষরবিহীন জন্ম নিবন্ধন সনদে দেখা যায় নবম শ্রেণিতে পড়লেও তার বয়স ১৯ বছরের বেশি। 

কনের বাবা স্বীকার করে বলেন, ওই জন্ম নিবন্ধনটি নিজেদের বানানো। পরে কনের বাবাকে আটক করে উপজেলা সদরে এনে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ইউএনও ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এরশাদ উদ্দিন বলেন, বাল্যবিবাহ কোনোভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। কঠোর হাতে তা দমন করা হবে। এতে সবার সহযোগিতা চাই। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে