পুলিশের এজাহারে মসজিদে মাইকিংয়ের বিষয়টি সাজানো

সিনহা হত্যা

পুলিশের এজাহারে মসজিদে মাইকিংয়ের বিষয়টি সাজানো

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:০০ ১৩ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৭:৪৪ ১৩ আগস্ট ২০২০

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের মৃত্যুর ঘটনায় একে একে রহস্যের জট খুলতে শুরু করেছে। প্রাথমিক তদন্তে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করছে র‍্যাব। এমনকি পুলিশের এজাহারে উল্লেখিত মারিসবুনিয়ার স্থানীয় মসজিদের মাইকিংয়ের বিষয়টিও নাকি সম্পূর্ণ সাজানো।

এর আগে, ৩ জুলাই ভ্রমণবিষয়ক তথ্যচিত্র ধারণের কাজে কক্সবাজার যান সিনহা। এরপর ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের পাহাড়ে ভিডিওচিত্র ধারণ করে মেরিন ড্রাইভ দিয়ে কক্সবাজারের হিমছড়ি এলাকার নীলিমা রিসোর্টে ফেরার পথে শামলাপুর তল্লাশিচৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন তিনি। তখন হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ধামাচাপা দিতে উল্টো মামলা করে পুলিশ।

পরে ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ, পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। পরদিন ৬ আগস্ট বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপসহ সাত আসামি কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আত্মসমর্পণ করেন।

সিনহা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মঙ্গলবার দুপুরে বাহারছড়া এলাকা থেকে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব। এরা হলো- নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মো. আয়াছ। গ্রেফতারের পর তাদের কক্সবাজার আদালতে নেয়া হয়।

বুধবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহ র‍্যাবের ১০ দিনের রিমান্ড আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস/এইচএন