পিরোজপুরে খাতা-কলমে সীমাবদ্ধ জাপা কার্যক্রম

পিরোজপুরে খাতা-কলমে সীমাবদ্ধ জাপা কার্যক্রম

পিরোজপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৫৯ ১১ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৭:৩০ ২৩ আগস্ট ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

পিরোজপুরে নামকাওয়াস্তে চলছে জাতীয় পার্টির (জাপা) কার্যক্রম। পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুর পর থেকে তাদের আর কোনো কার্যক্রম চোখে পড়েনি। মিটিং-মিছিল তো দূরের কথা মহামারি করোনাভাইরাস কিংবা বন্যার সময়েও জেলার নেতাকর্মীদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। মূলত এখন শুধু খাতা-কলমে সীমাবদ্ধ জাতীয় পার্টি।

প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় ধরে জেলা সদরে জাতীয় পার্টির কোনো কার্যালয় নেই। তবে শহরের নড়াইলপাড়ায় এলিজা জামান নামে বিএনপির এক নেত্রীর স্বামীর আবাসিক হোটেলের নিচতলায় একটি কক্ষ ভাড়া নেন দলটির জেলা সদস্য মো. তৌনিক-উল-হক। সেখানে অস্থায়ী কার্যালয় হিসেবে মাঝে মধ্যে কার্যক্রম চালাচ্ছেন তিনি। ফলে জাতীয় পার্টির কর্মকাণ্ডে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন পিরোজপুরের মানুষ। আর স্থবির হয়ে পড়েছে দলটির কার্যক্রম।

জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১০ আগস্ট শহরের হাসপাতাল সড়কে এসবি কমিউনিটি সেন্টারে সবশেষ জেলা জাপার সম্মেলন হয়। ওই সম্মেলনে পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফয়সাল চিশতি ও ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরুর উপস্থিতিতে সেকেন্দার আলী মুকুল বাদশাকে সভাপতি এবং রফিকুল ইসলাম সেলিমকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এছাড়া সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসেবে রাখা হয় নজরুল ইসলাম বাদশাকে। কিন্তু আকস্মিক এ সম্মেলনের আয়োজনকে ঘিরে জেলা সদরে পার্টির নেতাকর্মীদের মাঝে বিভক্তি দেখা দেয়। 

মঠবাড়িয়ার বাসিন্দা ঢাকায় বসবাসকারী মুকুল বাদশা মুক্তিযুদ্ধের সময় স্বাধীনতাবিরোধী ভূমিকা পালন করেছেন এমন অভিযোগে ক্ষোভ-অসন্তোষ তীব্র আকার ধারণ করে। সবশেষ ২০১৯ সালের ১৭ ডিসেম্বর একটি কমিটির অনুমোদন দেন জাপার বর্তমান চেয়ারম্যান জিএম কাদের ও তৎকালীন মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙা। ৪১ সদস্যের এ কমিটিতে তৌহিদ উদ্দিন শেখকে আহ্বায়ক ও নাজিরপুরের বাসিন্দা ঢাকায় বসবাসকারী নজরুল ইসলামকে সদস্য সচিব করা হয়। কিন্তু এ কমিটি নিয়েও তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাঝে অসন্তোষ রয়েছে।

সমাজসেবী আমিন মোস্তফা বলেন, নিজেদের ভুলের কারণে এ অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে জাতীয় পার্টি। কেন্দ্র থেকে তৃণমূল পর্যন্ত কোনো চেইন অব কমান্ড নেই।

আইনজীবী ওয়াহিদ হাসান বাবু বলেন, পিরোজপুরে জাতীয় পার্টির কোনো কর্মকাণ্ড নেই বললেই চলে। তারা কে, কখন, কোন পদে ঢাকা থেকে কীভাবে দায়িত্ব পান তা নিয়ে পিরোজপুরের মানুষের মাঝে কৌতুহল রয়েছে।

জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক তৌহিদ উদ্দিন শেখ বলেন, দলের কোনো অনুদান কিংবা নির্দেশনা নেই। এমনকি মহামারি করোনা ও বন্যা পরিস্থিতিতে জেলা পর্যায়ে জাপা কী করবে সে সিদ্ধান্তও পাইনি। 

ইচ্ছা থাকলেও সব সময় সবকিছু করতে পারি না বলে জানিয়েছেন জেলা জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব নজরুল ইসলাম।

জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সদস্য সচিব বশির আহম্মেদ বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে শহরের সিও অফিসে মাস্ক এবং লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। তবে বন্যা পরিস্থিতিতে দলীয় কর্মকাণ্ডের বিষয়টি নিজেই এড়িয়ে যাই।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ/এইচএন/জেডএম