দূরবীনপ্রথম প্রহর

পা ব্যথায় করণীয়

ফাতিমাতুজ্জোহরাডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম
ছবি: সংগৃহীত

সারাদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করে রাতে ঘুমাতে যাওয়ার সময় খুবই পায়ে ব্যথা হয়ে থাকে।

পায়ে ব্যথর জন্য ঘুমাতে পারেন না। আবার পরের দিন সকাল বেলা ঘুম থেকে উঠে কাজে যেতে হবে। এ পা ব্যথা খুবই কষ্টকর। পায়ে ব্যথার কথা না যায় কাউকে বলা না যায় এ ব্যথার কষ্ট সহ্য করা।

অনেকেই পায়ের ব্যথায় দড়ি পেচিয়ে শুয়ে থাকেন। তাই এ রকম পা ব্যথার জন্য করণীয় উপায়গুলো জেনে নিন-

পা ব্যথা কেন হয়?

যারা দাঁড়িয়ে রান্না করেন বা কাজ করেন কিংবা যারা সব সময় হাটা চলার মধ্যে কাজ করতে হয় তাদের পায়ে ব্যথা হতে পারে। এছাড়া যাদের ওজন বেশি হয় তাদেরও হতে পারে। একটু বেশি পরিশ্রম করলে বা হাটা চলা করলেই পায়ে ব্যথা হয়ে থাকে। পায়ে ব্যথায় করনীয়:

পায়ে ব্যথার সমস্যা থাকলে ভালো জুতা বাছাই করতে হবে। খুব হিল জুতা পড়া যাবে না। অফিস থেকে ফিরে বা বাইরে থেকে এসে বেশ কিছুটা সময় খালি পায়ে হাটবেন। কিংবা নরম সোলের জুতা ব্যবহার করতে পারেন। তবে ব্যথার সম্ভাবনা অনেক কমে যাবে। যাদের প্রচুর কাজের চাপ, বিশ্রাম পান না, তাদেরও কিছু সময়ের জন্য পা দুটোকে বিশ্রাম দিতে হবে। কিছু সময় পা মেলে বসতে পারেন, বাড়িতে এসে খালি পায়ে হেটে পা দুটো সামনের দিকে দিয়ে মেলে বসতে পারেন।

অফিসে কাজ করার সময় কিছু সময় পর পর জুতা খুলে একটু হালকা ভাবে বসার চেষ্টা করতে হবে। তবে পা অনেক আরাম পাবেন। আর ব্যথা অনেক কম হবে। যারা দাঁড়িয়ে রান্না করেন তারা রান্নার পর হালকা গরম পানি গোসল করতে পারেন। সেটা যদি সম্ভব না হয় তবে একটু গরম পানি করে পা ডুবিয়ে রেখে দিতে হবে। এতেও পায়ে অনেক আরাম পাবেন। এতেও যদি কাজ না হয় তবে হট ওয়াটার ব্যাগ দিয়ে পায়ে চেপে রাখতে পারেন। তবেও অনেক আরাম পাবেন।

এছাড়াও গরম পানি করে লবণ মিশিয়ে এর মধ্যে পা ভিজিয়ে রাখতে পারেন। তবে পা ব্যথা অনেক কম হবে। আপনি যখন অবসর সময়ে বসে আরাম করবেন তখন নিজে নিজেই হাত দিয়ে হালকাভাবে পা ম্যাসাজ করুন। তবে পায়ে রক্ত চলাচল অনেক বেড়ে যাবে ও ব্যথা অনেকটাই কম হবে আর অনেক আরাম পাবেন।

এছাড়া প্রচুর পরিমাণে পানি খেতে হবে। পানি শূণ্যতা হলেও পা ব্যথা বা পেশির যে কোনো অংশে ব্যথা হতে পারে। আপনি কলা খেতে পারেন। কারণ এটি যে কোনো ধরণের ব্যথা দূর করতে সাহায্য করে। বিশেষ করে প্রচুর পরিমাণে সবুজ শাক সবজি ও ফলমূল খেতে পারেন। এগুলো খাওয়া শরীর সুস্থ রাখার জন্য খাওয়া খুবই জরুরী। তবে পেশির দুর্বলতা হবে না ও পা ব্যথাও হবে না।

এছাড়াও পানি শূণ্যতা থেকে পেশিগুলোতে টান ধরে। প্রচুর পরিমাণে ফল ও পানি খেতে হবে। যা পেশির টান ধরা থেকে মুক্তি দিবে। তাই কলা বা ফল ও পানি খেলে পায়ে অনেক আরাম পাবেন ও ব্যথাও কম হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

daily-bd-hrch_cat_news-11-10