পাবনায় সড়কে ছবি এঁকে করোনা সচেতনতার বার্তা

পাবনায় সড়কে ছবি এঁকে করোনা সচেতনতার বার্তা

পাবনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:২৬ ৩০ মে ২০২০   আপডেট: ২১:২৮ ৩০ মে ২০২০

পাবনায় সড়কে ছবি এঁকে করোনা সচেতনতার বার্তা

পাবনায় সড়কে ছবি এঁকে করোনা সচেতনতার বার্তা

পাবনার চাটমোহরে ফেসবুক পেজ ‘চেতনায় চাটমোহর’র উদ্যোগে করোনা সচেতনতায় ব্যতিক্রমী সড়ক চিত্রাংকন শুরু হয়েছে। শুক্রবার শুরু হওয়া ৫ দিনব্যাপী এ কর্মসূচী চলবে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত। 

করোনাভাইরাস সম্পর্কে পথচলা মানুষকে সচেতন করার অংশ হিসেবে এই কর্মসূচী গ্রহণ করা হয়েছে বলে অয়োজক তরুণরা জানান।

প্রথমদিনে শুক্রবার চাটমোহর পৌর সদরের জারদিস মোড়ে শুরু হয় এ কর্মসূচী। এ সময় বিভিন্ন ব্যক্তি, সংগঠন ও শিশু-কিশোর এই কর্মসূচীতে একাত্মতা প্রকাশ করে নিজেদের হাতের ছাপ রেখে যান চিত্রাংকনে অংশ নিয়ে। এছাড়া দ্বিতীয় দিন শনিবার পৌর সদরের জিরো পয়েন্ট এলাকায় চিত্রাংকন করা হয়।

এ কর্মসূচীতে উপস্থিত থেকে সংশ্লিষ্টদের উৎসাহ দেন চাটমোহর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সজীব শাহরীন, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইকতেখারুল ইসলাম, জেলা পরিষদ সদস্য হেলাল উদ্দিন ও সাইদুল ইসলাম পলাশ, বড়াল রক্ষা আন্দোলনের সদস্য সচিব এস এম মিজানুর রহমান, চাটমোহর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি কে এম বেলাল হোসেন স্বপন, সহ-সভাপতি শেখ জিয়ারুল হক সিন্টু, অরবিটল লিংক স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরিচালক আব্দুল মতিন, আর্টিস্ট মিলন রবসহ অনেকে।

এছাড়া এই কর্মসূচী বাস্তবায়নে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের মধ্যে তারুণ্যের আলো, বিডিক্লিন-চাটমোহর ও স্বপ্ন পক্ষ’র কর্মীরা অংশগ্রহণ করেন। সেইসঙ্গে বেশকিছু শিশু-কিশোর শিক্ষার্থী স্বত:স্ফূর্তভাবে এই ছবি আঁকায় অংশ নেন। আর পুরো কর্মসূচী সমন্বয় করেন অংকন শিক্ষক মানিক দাস।

এ বিষয়ে চেতনায় চাটমোহরের অ্যাডমিন জেমান আসাদ বলেন, মানুষ অপ্রয়োজনে পথে বের হচ্ছেন। মুখে মাস্ক থাকছে না, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না। তাই পথচারীদের জন্য পথেই আমরা ছড়িয়ে দিতে চাই সচেতনতার বার্তা। এ উদ্দেশ্যেই সড়ক সচেতনতার এই উদ্যোগ গ্রহণ। পথ চলতে চলতে মানুষ এই ছবি দেখে যেন নিজেকে অনুভব করেন। প্রাথমিকভাবে চাটমোহর পৌর সদরের পাঁচটি পয়েন্টে এই ছবি আঁকা হবে।

কর্মসূচীর সমন্বয়ক অংকন শিক্ষক মানিক দাস বলেন, সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনগুলো বিভিন্নভাবে মানুষকে সচেতন করার কাজ করে যাচ্ছে। তারপরও মানুষের মাঝে সচেতনতার বড় অভাব। আমরা চাই পথে চলা মানুষ আমাদের ছবি দেখে সচেতন হবেন, কিংবা সচেতন হওয়ার তাগাদা অনুভব করবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ