Alexa পাওনা টাকা চাওয়ায় ঠিকাদারকে হয়রানি

পাওনা টাকা চাওয়ায় ঠিকাদারকে হয়রানি

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২১:২৫ ১২ নভেম্বর ২০১৯  

ভুক্তভোগী কবির হোসেন

ভুক্তভোগী কবির হোসেন

কুমিল্লার মুরাদনগরে পাওনা টাকা চাওয়ায় এক ঠিকাদারকে মিথ্যা মামলাসহ বিভিন্নভাবে হয়রানি করছে তার সাবেক সহযোগী।

ভুক্তভোগী মো. কবির হোসেন দেবিদ্বার উপজেলার আকামত আলীর ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বাখরাবাদ গ্যাসের ঠিকাদার হিসেবে কাজ করছেন।

অভিযুক্ত মো. মজিবুর রহমান মুরাদনগরের নহল গ্রামের মোজাফ্ফর আহাম্মদের ছেলে।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ, পাঁচ লাখ টাকা না দেয়ার জন্য শাহজাহান, আনিসুর রহমান, আবু মুসা নামে তিনজনের সহায়তায় দীর্ঘদিন ধরে হয়রানি করছেন মজিবুর।

কবির হোসেন বলেন, মজিবুর এক সময় আমার সহযোগী হিসেবে কাজ করতেন। ২০১৬ সালের ৫ ডিসেম্বর ছেলেকে বিদেশ পাঠানোর কথা বলে আমার কাছ থেকে স্ট্যাম্পের মাধ্যমে ছয় মাসের জন্য পাঁচ লাখ টাকা নেন তিনি। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় শেষে টাকা না দিয়ে নানা টালবাহানা শুরু করেন মজিব। এরপর অসংখ্যবার তারিখ দিয়েও তিনি টাকা ফেরত দেননি।

তিনি আরো বলেন, ১ নভেম্বর টাকা দেয়ার কথা বলে আমাকে বাড়িতে ডাকেন মজিবুর। আমি তার বাড়িতে গেলে তিনি আমাকে শাহজাহানের বাড়িতে নিয়ে যান। এরপর তারা চাঁদাবাজির অভিযোগে আমাকে সাজানো মামলায় আমাকে জেলে পাঠায়।

কবির হোসেন বলেন, একদিন পর আমি জামিনে বের হলে মজিবের ভায়রা আবু মুসা ফোন করে বলে, ‘যা হয়েছে বাদ দেন, এসে টাকা নিয়ে যান।’ আমি গেলে তারা আমাকে মারধর করে নগদ টাকা, মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে আবারো পুলিশের হাতে তুলে দেয়। পরে পুলিশ বিষয়টি বুঝতে পেরে আমাকে ছেড়ে দেয়। 

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মজিবুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মজিবুরের সহযোগী শাহজাহানও।

মুরাদনগর থানার এসআই আবদুস সুলতাল বলেন, চাঁদাবাজির অভিযোগে ঠিকাদার কবির হোসেনকে আটক করা হয়েছিলো। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি সঠিক উত্তর দিতে পারেননি। সুনির্দিষ্ট অভিযোগের প্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর