Alexa পাঁচদিনের শিশু নিয়ে পরীক্ষা দিলেন মা

পাঁচদিনের শিশু নিয়ে পরীক্ষা দিলেন মা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০১:৩৬ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০১:৪১ ৫ ডিসেম্বর ২০১৯

আশুরা আক্তার পিংকি

আশুরা আক্তার পিংকি

ঘড়ির কাঁটায় তখন দুপুর ১টা। সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের পরীক্ষা কেন্দ্রের পাশে শিক্ষকদের সভাকক্ষের টেবিলে এক নবজাতক। একটু সামনে গেলেই চোখে পড়ল পরীক্ষা দিচ্ছেন এক নারী। পরে জানা যায়, তিনি ওই নবজাতকের মা। শিশুটির বয়স পাঁচদিন।

বুধবার অনার্স বাংলা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের রাজনৈতিক সংগঠন বিষয়ে পরীক্ষা চলছিল। আর সে পরীক্ষা দিতেই পাঁচদিনের শিশুকে নিয়ে কেন্দ্রে যান আশুরা আক্তার পিংকি। তার স্বপ্ন বিসিএস ক্যাডার হওয়ার। এ স্বপ্ন বাস্তবায়নে তার স্বামীও সর্বাত্মক চেষ্টা করছেন।

পিংকি দেবহাটা উপজেলার কাজীমহল্লা গ্রামের শেখ রাজু আহমেদের মেয়ে। পার্শ্ববর্তী কোঁড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য নজরুল ইসলামের ছেলে মাহমুদুল হাসান সুজনের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। সুজন ফার্মাসি বিভাগের শিক্ষার্থী।

৩০ নভেম্বর সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের ডা. মাহফুজা আক্তার ও সাইফুল্লাহ আল কাফির তত্ত্বাবধানে মেয়ে শিশু জন্ম দেন পিংকি।

হাসপাতালে সন্তান পাশে রেখেই পড়ছেন পিংকি

পিংকি জানান, বিয়ের আগে থেকেই তাদের মধ্যে জানাশোনা ছিল। তখনই পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার কথা সুজনকে জানানো হয়। এতে সুজনও উৎসাহ দেন। সুজনের বাবা ও মা লাইলিমা খাতুনও দেন উৎসাহ।

তিনি আরো জানান, স্বপ্ন পূরণে সবাই তার পাশে দাঁড়িয়েছেন। শ্বশুর-শাশুড়ি ও স্বামী সহায়তা করছেন। সংসারের শত কাজের মাঝেও নিয়মিত লেখাপড়ার খোঁজ নিচ্ছেন তার শ্বশুর।

পিংকির স্বামী সুজন জানান, অপারেশন থিয়েটারে নেয়ার সময় পিংকি ব্যাকুল হয়ে পড়েছিলেন যে, তিনি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন কিনা। তার এ আগ্রহ দেখে বিস্ময় প্রকাশ করেন ডা. সাইফুল্লাহ আল কাফি ও মাহফুজা আক্তার। তখন তারা বলেন, পিংকি শিক্ষা সংগ্রামের একজন সংগ্রামী। তাকে যেকোনো নারী অনুসরণ করতে পারে।

সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের অনার্স পরীক্ষা পরিচালনা কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক কাজী আসাদুল ইসলাম জানান, পিংকি পড়াশোনার প্রতি যে অদম্য আগ্রহ তাতে কলেজের সবার কাছে অনেকটা বিস্ময়ের। তার এ চেষ্টা প্রশংসনীয়। এ সময় সন্তান নিয়ে পরীক্ষা দিতে আসায় পিংকিকে উৎসাহ দেন তিনি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর