পর্বতারোহী রেশমার মৃত্যুতে এমপি মাশরাফীর শোক

পর্বতারোহী রেশমার মৃত্যুতে এমপি মাশরাফীর শোক

নড়াইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২৩:৩২ ৭ আগস্ট ২০২০  

পর্বতারোহী রেশমা

পর্বতারোহী রেশমা

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ধোপাদাহ গ্রামের খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসেন সিকদারের (বীর বিক্রম) কন্যা পর্বতারোহী, সাইক্লিস্ট ও দৌড়বিদ রেশমা নাহার রত্না সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। 

তিনি ঢাকার ধানমন্ডি এলাকার আইয়ুব আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন।

নিহতের পরিবারের সদস্যরা জানান, শুক্রবার সকালে রাজধানীর সংসদ ভবন এলাকার চন্দ্রিমা উদ্যান সংলগ্ন লেকরোডে সাইক্লিং করার সময় একটি প্রাইভেটকার চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। রাজধানীর লেকরোডে একটি গাড়ি তাকে চাপা দেয়। পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। 

এদিকে রেশমা নাহার রত্নার অকাল মৃত্যুতে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন নড়াইল-২ আসনের এমপি ক্রিকেটার মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। 

এক শোকবার্তায় তিনি লিখেছেন, নড়াইল জেলার কৃতি সন্তান রেশমা নাহার রত্না সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রেশমা নাহার রত্না নড়াইল জেলার লোহাগড়া উপজেলার ধোপাদাহ গ্রামের কৃতি সন্তান বীর বিক্রম খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা আফজাল হোসেন সিকদারের কনিষ্ঠ কন্যা। রেশমা নাহার রত্নার অকাল মৃত্যুতে আমি তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি ও সম্ভাবনাময়ী এই অভিযাত্রীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি।

এদিকে রেশনা নাহার রত্নার অকাল মৃত্যুতে নড়াইলের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

রেশমা নাহার রত্না ২০০২ সালে লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর এসি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পাস করেন। এরপর ঢাকায় ইডেন কলেজে লেখাপড়া শেষ করেন। 

রেশমা নাহার রত্না ৬ হাজার মিটারের দু'টি পর্বতে সফল অভিযানের পর বেশ আলোচনায় আসেন। ২০১৬ সালে বাংলাদেশের পাহাড় কেওক্রাডংয়ের চূড়া স্পর্শ করার মাধ্যমে শুরু হয় রত্নার অভিযান। এরপর আর থেমে থাকেননি। ওই বছর মৌলিক প্রশিক্ষণের জন্য ভারতের উত্তরাখন্ডে উত্তরকাশিতে অবস্থিত পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান নেহেরু ইনস্টিটিউট অব মাউন্টেনিয়ারিংয়ে যান তিনি। কিন্তু অ্যাডভ্যান্স বেজক্যাম্পে যাওয়ার পর তার পায়ে ফ্র্যাকচার হয়। দেশে ফেরার পর সুস্থ হতে সময় লেগে যায়। পরবর্তী সময়ে নিজ উদ্যোগে সফলভাবে পর্বতারোহণের মৌলিক ও উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন তিনি।

২০১৯ সালের ২৪ আগস্ট ভারতের লাদাখের স্টক কানরি (৬হাজার ১৫৩ মিটার) ও ৩০ আগস্ট কাং ইয়াস্তে-২ (৬হাজার ২৫০ মিটার) পর্বত দুটিতেও সফলভাবে আরোহন করেন। এছাড়া ২০১৮ সালের আফ্রিকার সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট কিলিমাঞ্জারো ও দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পর্বত মাউন্ট কেনিয়া অভিযানেও রেশমা নাহার রত্না অংশ  নিয়েছিলেন।  
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ