Alexa পরিণীতির কারণে পর্যটক বেড়েছে অস্ট্রেলিয়ায়

পরিণীতির কারণে পর্যটক বেড়েছে অস্ট্রেলিয়ায়

ভ্রমণ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:০৮ ২৭ জুন ২০১৯   আপডেট: ১০:১৩ ২৭ জুন ২০১৯

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

থিম পার্ক, রৌদ্রজ্জ্বল সৈকত, ওয়াটার স্পোর্টস, রেইন ফরেস্ট কিংবা বন্যপ্রাণী—কী নেই অস্ট্রেলিয়ায়। তাই তো যেকোনো বয়সী মানুষের জন্য বিনোদনের প্রাণকেন্দ্র বলতে পারেন অস্ট্রেলিয়াকে। দেশটির পর্যটক কর্তৃপক্ষ বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়ার তারকাখ্যাতিকে কাজে লাগাচ্ছে। ট্যুরিজম অস্ট্রেলিয়ার সক্রিয় প্রচারক হিসেবে কাজ করেন পরিণীতি। তিন বছর ধরে ‘ফ্রেন্ড অব অস্ট্রেলিয়া’র দায়িত্ব সামলাচ্ছেন তিনি। এর সুফলও পাচ্ছে দেশটি।

ইন্ডিয়া এন্টারটেইনমেন্ট মার্কেটিং রিপোর্ট ২০১৯ অনুযায়ী, পরিণীতিকে ‘ফ্রেন্ড অব অস্ট্রেলিয়া’ (শুভেচ্ছাদূত) নিযুক্ত করার পর ক্যাঙ্গারুদের দেশে ভারতীয় পর্যটকদের সমাগম বেড়েছে ২১ শতাংশ। এর মধ্যে গত ছয় মাসেই বেড়েছে ১৫ শতাংশ! পরিণীতি, মন থেকে অস্ট্রেলিয়ার পর্যটনের বিকাশে কাজ করি। সেখানে ভারতীয় পর্যটকদের সংখ্যা ৫০ শতাংশে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য আছে আমার।

অস্ট্রেলিয়ায় পরিনীতি

বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়া জানিয়েও দিলেন অস্ট্রেলিয়ার কেন তার পছন্দ। লর্ড হাও দ্বীপ, সিডনি, ওলগাস, টুয়েলভ অ্যাপসটেলস, কাকাডু ও গ্রেট বেরিয়ার রিফ এর সৌন্দর্যে তিনি মুগ্ধ। জায়গাগুলোর বর্ণনাও দিয়েছেন তিনি-

লর্ড হাও দ্বীপ

প্রকৃতি প্রেমীদের জন্য লর্ড হাও দ্বীপ অসাধারণ জায়গা। অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের মাঝামাঝি এই দ্বীপটি তাসমানিয়া সাগরে অবস্থিত। এই দ্বীপের বেশির ভাগ জায়গাই বন, উদ্ভিদ ও প্রাণীজ সম্পদ নিয়ে গঠিত। মহাসাগরীয় আগ্নেয়শীলার বৈচিত্র্য, দক্ষিণের প্রবাল প্রাচীর, সামুদ্রিক পাখির বাসা এবং এর ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য এই দ্বীপটিকে পর্যটকদের জন্য করে তুলেছে অনন্য।

সিডনিতে পরিনীতি

সিডনি

এটি অস্ট্রেলিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় শহর। দেশটির নিউ সাউথ ওয়েলসের রাজধানী এবং একটি আধুনিক শহর এটি। বর্তমানে ফেরীতে করে সমুদ্র ভ্রমণের জন্য দর্শনার্থীদের ঘোরানো হয় সিডনি হারবার ব্রিজ এবং আইকনিক সিডনি অপেরা হাউজে।

ওলগাস

অস্ট্রেলিয়ার আয়ারস পর্বতের পশ্চিম দিকে ওলগাস অবস্থিত। এটি ৩৬টি গঠনের পাথুরে এলাকা এবং পৃথিবীর সবচেয়ে দীর্ঘ শুষ্ক স্থান। এটি আয়ারস পর্বত থেকে ১২০০ ফুট উঁচুতে অবস্থিত একটি সমতল মরুভূমি। দুঃসাহসিক কাজ করতে যারা ভালোবাসেন তারাই মূলত এই মরুভূমিতে বেশি ভ্রমণ করে থাকে।

সমুদ্র থেকে এক ঝাঁক পেঙ্গুইন উঠে আসতে দেখে অবাক পরিনীতি, পাশে সাইকেল রাইডের ছবি

টুয়েলভ অ্যাপসটেলস

এটি হচ্ছে চুনা পাথরের স্তূপ যা ক্রমান্বয়ে ক্ষয়প্রাপ্ত হয়ে গঠিত হয়। অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়ান উপকূলে অবস্থিত এই টুয়েলভ অ্যাপসটেলস। নাম টুয়েলভ অ্যাপসটেলস হলেও এখানে চূড়া ছিল ৯টি। তবে সাম্প্রতিক পতনের ফলে এখানে বর্তমানে ৮ টি চূড়া আছে।

কাকাডু

কাকডু একটি সুন্দর পার্ক যা অস্ট্রেলিয়ার উত্তর অংশে অবস্থিত। অস্ট্রেলিয়ার ডারউইন দ্বীপের দক্ষিণ পাশে অবস্থিত এটি। অসাধারণ সুন্দর ভূ-প্রাকৃতিক দৃশ্যের পাশাপাশি সমৃদ্ধ বন্যপ্রাণী ও চমৎকার গাছপালা নিয়ে এটি গঠিত। জলপ্রপাতের সৌন্দর্য ভ্রমণপিপাসুদের এখানে আকৃষ্ট করে।

দেশটির খাবার কিংবা পোশাক—সবই পছন্দ তারগ্রেট বেরিয়ার রিফ

কোরাল সাগরে গ্রেট ব্যারিয়ার রিফের অবস্থান। এটি পৃথিবীর অন্যতম বড় প্রবাল প্রাচীর। যা ২,৯০০টির বেশি প্রবাল প্রাচীর এবং শত শত দ্বীপ নিয়ে গঠিত। এই প্রবাল প্রাচীর পৃথিবীর সবচেয়ে বিচিত্র বাস্তুতন্ত্রের একটি।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে