Alexa পতিতাবৃত্তি যে দেশে বৈধ

পতিতাবৃত্তি যে দেশে বৈধ

সাখাওয়াত হোসেন শুভ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৩৫ ৫ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ১১:৩৮ ৫ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিম ইউরোপের দেশ নেদারল্যান্ড। তবে এ দেশটিকে অনেকে হল্যান্ড নামে জানে। যদিও হল্যান্ড হল নেদারল্যান্ড এর একটি ঐতিহাসিক অঙ্গরাজ্য। দেশটি উত্তর সাগরের তীরে অবস্থিত। দেশটির পূর্ব দিকে জার্মানি আর দক্ষিণে বেলজিয়ামের সঙ্গে স্থল সীমান্ত আছে। পশ্চিমে বেলজিয়াম ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে এবং পূর্বে জার্মানির সঙ্গে নেদারল্যান্ডস এর সামুদ্রিক সীমা রয়েছে। তবে নেদারল্যান্ড এর অধীনে রয়েছে আরও তিনটি দ্বীপ।

প্রাচীনকালে নেদারল্যান্ডস এ কেলটিও ও জার্মানিও গোত্রের মানুষরা বসবাস করত। রোমানরা এই অঞ্চলটি শাসন শুরু করলে এই দেশটির শিল্প বাণিজ্যের বিকাশ ঘটে। খ্রিষ্টীয় তৃতীয় শতকে পুনঃ জাগরিত জার্মান গোত্রের আক্রমনে এবং সমুদ্রের কোরাল গ্রাসে রোমানদের শক্তি হ্রাস পায়। শেষ পর্যন্ত পঞ্চম শতকে জার্মানির আক্রমন রোমান শক্তির অবসান ঘটায়। প্রথমে মেরেভিঙ্গিয় এবং পরবর্তী সপ্তম শতকে কারলিঙ্গিয় রাজবংশ এখানে শাসন করে। কারলিঙ্গিয় শাসনতন্ত্র দেশটিতে খ্রিস্টান ধর্মের আবির্ভাব ঘটায়। এরপর ১৪শ শতকের শেষ ভাগে বুরগয়িনি দিউকেরা এবং তারপরে ১৬শ সতকের শুরুতে স্পেন এর হারভস বংশ দেশটি শাসন করে। 

ফুলের বাগান১৫৮১ সালে কেল্ভিন বাদিদের নেত্রিত্যে উত্তরের সাতটি প্রদেশ স্পেন এর হাত থেকে নিজেদের স্বাধীন ঘোষণা করে। ১৬৪৮ সালে ৩০ বছরের যুদ্ধ শেষে স্পেন ওলন্দাজদের স্বাধীনতার স্বীকৃতি দেয়। মৎস্য শিকার ও জাহাজ নির্মাণে ওলন্দাজদের জুরি মেলা ভার। ১৭০০ সালে ওলন্দাজ জাতি অসাধারণ সমৃদ্ধি অর্জন করে। এরপর ১৮০৬ সালে নেপোলিয়নের অধীনে এটি হল্যান্ড রাজ্য হিসেবে পরিচিতি পায়। ১৯৪৯ সালে দেশটি ন্যাটোতে যোগদান করে। মাত্র ৪১ হাজার ৫৪৩ বর্গ কিলোমিটারের এই দেশটিতে মোট জনসংখ্যা প্রায় ১ কোটি ৭১ লাখ ৬৪ হাজার।

ইউরোপের অন্যতম ঘনবসতি সম্পন্ন একটি দেশ নেদারল্যান্ড। দেশটির প্রতি বর্গ কিলোমিটারে ৪১৩ জন মানুষের বাস। দেশটির ৪৪ শতাংশ মানুষ খ্রিস্টান ধর্মের অনুসারী। ৫ শতাংশ মুসলিম। বাকি প্রায় ৫০ শতাংশ মানুষ কোনো ধর্মের অনুসারী নয়। এই দেশের জাতীয় ভাষা ডাচ। অন্যান্য সরকারি ভাষাগুলো হচ্ছে- ওয়েস্ট ফ্রিজিয়ান, পাপামেন্টো এবং ইংরেজি। নেদারল্যান্ড এর সবথেকে বড় শহর দেশটির রাজধানী অ্যামস্টারডাম। এই শহরে প্রায় ৮ লাখ ৫৪ মানুষের বাস। নেদারল্যান্ড এ মহাসাগরীয় জলবায়ু বিদ্যমান। যার ফলে দেশটির জলবায়ু পশ্চিমের উত্তর সাগর দ্বারা প্রভাবিত।  

অনেক ক্যানেল রয়েছে দেশটিতেদেশটির রাজধানী অ্যামস্টারডাম এর জলবায়ুর ও একি অবস্থা। দেশটিতে শীতকালে গড় তাপমাত্রা থাকে মাইনাস ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর গ্রীষ্মকালে তাপমাত্রা গড়ে ২২ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কাছাকাছি থাকে। তাহলে এবার চলুন নেদারল্যান্ড এবং হল্যান্ড নিয়ে বিভ্রান্তি দূর করা যাক। একটি দেশের যে দু’টি নাম থাকতে পারে তা আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত বা ইন্ডিয়া থেকেই জানি। তাছাড়া মিশর বা ইজিপ্ট এর ও একি অবস্থা। নিঃসন্দেহে আমাদের কাছে নেদারল্যান্ড আর হল্যান্ড একই দেশের দুটি নাম। কিন্তু এমনটা ভাবা যাবেনা যে আমরাই শুধু এই ভুলটা করছি। 

আসলে পুরো পৃথিবীর মানুষই এই বিভ্রান্তিতে থাকে। গত হাজার বছরের ইতিহাস এ দেশটির নাম কয়েকবার বদলেছে। কখনও দ্য ডাচ রিপাব্লিক বা দ্য ইউনাইটেড স্টেট অব বেলজিয়াম অথবা কিংডম অব হল্যান্ড। আপনি ভাবতে পারেন যে একসময় দেশটির নাম হল্যান্ড ছিল বলে হয়তো এখন এই নামেই চেনে। তবে কথাটা আংশিক সত্য। তাছাড়া ইতিহাসই যে দেশটির নাম নিয়ে বিভ্রান্তি শুরু করেছে তা কিন্তু নয়। বিভ্রান্তির মূল কারণ হচ্ছে উত্তর হল্যান্ড এবং দক্ষিণ হল্যান্ড। যার ফলে বুঝতেই পারছেন আমরা আসলে দুটি প্রদেশকে একটি দেশের সঙ্গে গুলিয়ে ফেলি। আর এই দুই হল্যান্ড হচ্ছে দেশটির সব থেকে জনবহুল প্রদেশ। 

মানুষের চেয়ে সাইকেলের সংখ্যা বেশিদেশটির রাজধানী এবং বিখ্যাত শহর অ্যামস্টারডাম উত্তর হল্যান্ড এই অবস্থিত। দেশটির আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর কুকেনহফ দক্ষিণ হল্যান্ড এ অবস্থিত। মজার বিষয় হল দেশটির সরকারি ট্রাভেল ওয়েবসাইটটিতেও দেশটির নাম দেয়া রয়েছে হল্যান্ড। যার কারণ হিসেবে তারা বলছে এই নামটা বলতে সহজ এবং শুনতেও ভাল লাগে। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণটি হল পৃথিবীর অন্য সকল দেশের মানুষ দেশটি সম্পর্কে জানতে ইন্টারনেট এ হল্যান্ড লিখেই সার্চ করে থাকে। 

এখন চলুন জেনে নেয়া জান নেদারল্যান্ড এর কিছু মজার তথ্য

পৃথিবীর সবথেকে বেশি পানির শহর নেদারল্যান্ড এর রাজধানী অ্যামস্টারডাম। এই শহরের চার ভাগের এক ভাগ দখল করে আছে নদী-নালা ও খাল। অ্যামস্টারডাম এ ১০০ কিলোমিটার এর ও বেশি ক্যানেল এবং ৫০০ এর মত ব্রিজ রয়েছে। এত বেশি ক্যানেল আর ব্রিজ থাকার কারণে শহরটিকে উত্তরের ভেনিস বলেও আখ্যায়িত করা হয়। অ্যামস্টারডাম এর খাল এখন ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিট্যাজ সাইট হিসেবে বিবেচিত। 

এতো সুন্দর জেলখানা থাকতেও নেই কয়েদিসেখানকার পুলিশেরা অত্যন্ত ন্যয় পরায়ণ এবং বন্ধুসুলভ চরিত্রের অধিকারী।  পৃথিবীর সবচেয়ে ন্যয়-নিষ্ঠাবান পুলিশ আদতে সেখানেই রয়েছে। সেখানের পুলিশদের নির্দেশ দেয়া রয়েছে যেন যেকোনো ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা আলোচনার মাধ্যমে মীমাংসা করা হয়। যার ফলে নেদারল্যান্ডস এর অনেক জেলখানা কয়েদির অভাবে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ইউরোপের মধ্যে অন্যতম অর্থনীতিতে এগিয়ে থাকা দেশ নেদারল্যান্ড। 

এখানকার যেকোনো কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে হলে আপনাকে IELTS ৫.৫ নম্বর থাকা বাধ্যতামূলক। সঙ্গে আপনাকে আর্থিক দিক থেকেও স্বয়ংসম্পূর্ণ হতে হবে। তবে ভাল দিকটি হচ্ছে আপনি যদি সে দেশে যাওয়ার সব শর্ত পূরণ করতে পারেন তবে আপনার ভিসা পাওয়ার সম্ভাবনা শতভাগ। যাদের IELTS ৫.৫ নম্বর আছে এবং ১৬ থেকে ১৮ লাখ টাকা ব্যয়ের সামর্থ্য আছে তারা নেদারল্যান্ড এর ভিসার জন্যে আবেদন করতে পারেন। তাছাড়া পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের মেধাবী শিক্ষার্থীদেরকে স্কলারশিপ দেয় অ্যামস্টারডাম ইউনিভার্সিটি। 

দেশটির বিভিন্ন স্থানে রয়েছে পতিতালয়নেদারল্যান্ড এ মুসলিমদের সংখ্যা নেহাত কম নয়, প্রায় ১০ লাখ। যার বেশিরভাগ মানুষ তুরকিস অথবা মরক্কান। দেশটির রাজধানীর জনসংখ্যা প্রায় সাড়ে আট লাখ। আর সাইকেল এর সংখ্যা আনুমানিক দশ লাখ। শহরটিতে সাইকেল পার্ক করার জন্যে যথেষ্ট পরিমাণ পার্কিং জায়গা থাকা সত্ত্বেও তা বেশিরভাগ সময়ই ভরা থাকে সাইকেলে। আর যার ফলে অনেকে রাস্তার পাশে অনৈতিকভাবে সাইকেল রাখেন।

আর এখানে সাইকেল চুরিও একটি নিয়মিত বিষয়। প্রতি বছর এই শহরে প্রায় এক লাখ সাইকেল চুরি হয়। রিক্সার শহর ঢাকা হলে সাইকেলের শহর নেদারল্যান্ড। নেদারল্যান্ড এর সাথে বাংলাদেশের কয়েকটি বিষয়ে খুব মিল রয়েছে। যেমন আমাদের দেশের মত নেদারল্যান্ডস ও বন্যা প্রবণ দেশ। যার কারণ দেশটির অধিকাংশ স্থলভাগ এর উচ্চতা সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতার কাছাকাছি। যার জন্যেই দেশটির নাম হয়েছে নেদারল্যান্ডস। অর্থ্যাৎ লো ল্যান্ড বা নিচু জমি। 

উপর থেকে ঠিক এমনই মাকড়সার জালের মত দেখায় দেশটিনেদারল্যান্ড এর পানির পরিমাণ বাদ দিলে এটি বাংলাদেশ, কোরিয়া আর তাইওয়ান পরেই পৃথিবীর সবথেকে ঘনবসতিপূর্ণ দেশ। এই নিচু দেশটির মানুষেরাই আবার সব থেকে উঁচু। কারণ এই দেশের মানুষের গড় উচ্চতা পাঁচ ফুট দশ ইঞ্চি। দেশটির আর একটি বিস্ময়কর দিক হচ্ছে, এই দেশে পতিতাবৃত্তি সম্পূর্ণ বৈধ। এই দেশের পতিতারা অন্যান্য পেশাজীবীর মত সরকারকে আয়কর দিয়ে থাকে। নেদারল্যান্ড এর সরকারি মুদ্রা ইউরো। ২০১৯ সালের এক জরিপে দেখা যায়, দেশটির মোট জিডিপি এক ট্রিলিয়ন ডলার। আর দেশটির ডায়েলিং কোড হচ্ছে +৩১।  

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস