Alexa পটুয়াখালীতে দিনমজুর হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন

পটুয়াখালীতে দিনমজুর হত্যায় একজনের যাবজ্জীবন

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৫০ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

পটুয়াখালীর গলাচিপায় দিনমজুর কাশেম হত্যা মামলায় মোমিন গাজী নামের একজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে দশ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে ছয় মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। 

বুধবার দুপুরে অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালতের বিচারক এ.কে.এম এনামুল করিম এ রায় দেন। দণ্ডিত মোমিন গাজী ওই উপজেলার বাসিন্দা মান্নান গাজীর ছেলে। 

রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী অ্যাডভোকেট কমল দত্ত রায়ের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ২০০৮ সালের ৩০ জানুয়ারি সকালে পটুয়াখালীর গলাচিপার চপল মোচ একই এলাকার আমিন পাটোয়ারীর জমি বন্ধক রাখেন। সেই জমির একটি খালে বাঁধ দিতে দিনমজুর কাশেমকে নিয়োজিত করে চপল। পরে কাশেম মাটি কেটে বাঁধ দিতে পাঁচ মজুরকে নিয়ে উত্তর পাশের জমিতে যান। ওই জায়গায় পরিকল্পিতভাবে থাকা মোমিন গাজীসহ সহযোগীরা ধারালো দা দিয়ে কাশেমকে আঘাত করেন। এতে কাশেম পেটের ভেতর আঘাত পান। ওই দিন কাশেমের সঙ্গে থাকা অন্যান্য দিনমজুরা চপলকে ঘটনাটি জানান। ঘটনা শুনে চপল আসলে তাকেও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন। পরে তাদের গলাচিপা হাসপাতালে নিলে কাশেমকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে ৩১ জানুয়ারি রাত ৯টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় কাশেম মারা যান। 

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় ২০০৮ সালের ১ ফেব্রুয়ারি কাশেমের বাবা জেবল হক সরদার বাদী হয়ে মোমিন গাজীরসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। ২০০৮ সালের ৯ মে গলাচিপা থানার তদন্ত কর্মকর্তা আদালতে মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে ছয় সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত মোমিন গাজীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। এছাড়া অন্য পাঁচ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দেয়া হয়। 

আসামিপক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম মুকুল।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ