পঞ্চাশ বছর পর যে দেশে থাকবে না পানি!

পঞ্চাশ বছর পর যে দেশে থাকবে না পানি!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:৫৭ ৮ অক্টোবর ২০১৯   আপডেট: ২১:৪৭ ৮ অক্টোবর ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

মানুষ অনেক কিছু ছাড়া বাঁচতে পারে কিন্তু পানি ছাড়া বাঁচা মোটেই সম্ভব না। জানাগেছে বিশ্বজুড়ে জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলে মধ্যপ্রাচ্যে গরমের তীব্রতা বাড়ছেই। একই সঙ্গে কমে যাচ্ছে বৃষ্টিপাত।

জলবায়ুর পরিবর্তনের ফলে মধ্যপাচ্যের দেশ জর্ডানে পরিবেশের বিরুপ প্রভাব লক্ষ করা গেছে। দেশটিতে ক্রমেই ফুরিয়ে যাচ্ছে পানি!

বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশটিতে প্রতি বছর ডেড সিতে পানির স্তর এক মিটার করে কমছে।  জর্ডান নদীর স্রোতধারা নেই বললেই চলে। বলা যায় শুকিয়ে যাচ্ছে। দেশটিতে জলবায়ুর পরিবর্তনের ধাক্কা সবচেয়ে বেশি গ্রামাঞ্চলে। কৃষিকাজে পানির সেচ দিতে পারছেন না কৃষকরা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অনেক বাড়িতে সপ্তাহে মাত্র কয়েক ঘণ্টা করে পানি থাকে। বহু মানুষ গ্রাম ছেড়ে শহরে চলে যাচ্ছেন। দেশটির সরকার পানির স্বল্পতা পূরণে ভূগর্ভের পানি তুলছে। অবস্থা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে। সাগরের পানিকে লবণমুক্ত করার কথা ভাবছে। 

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ভূগর্ভের পানি দিয়ে বড়জোর ৫০ বছর চলবে। মধ্যপ্রাচ্যের কিছু অংশ ২০৫০ সালের পর জনবসতিহীন হয়ে যেতে পারে।

গবেষকদের ধারণা, আগামী ৫০ বছরে দেশটিতে পানি এত ফুরিয়ে যাবে যে তা আগের মতো পাওয়া যাবে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে