Alexa দফতরে দফতরে ছুটেছেন মাশরাফী

দফতরে দফতরে ছুটেছেন মাশরাফী

নড়াইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ০০:১৩ ১৮ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০০:৫৭ ১৮ নভেম্বর ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নড়াইলের উন্নয়নে সচিবালয়ের সাতটি দফতরে ব্যস্ত সময় পার করেছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা এমপি। 

রোববার সারাদিন স্বরাষ্ট্র, শিক্ষা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ, সমাজকল্যাণ, জনপ্রশাসন, অর্থ ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের দফতরে ছুটে যান তিনি।

মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার বন্ধু সৌমেনচন্দ্র বসু জানান, মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে যান। এ দফতরে গিয়ে নড়াইল সদর উপজেলা ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন দ্বিতীয় শ্রেণিতে উন্নীতকরণ, গাড়ি বরাদ্দ, নড়াইল ও লোহাগড়া থানার জন্য পুলিশ টহলের গাড়ি বরাদ্দের জন্য আবেদন করেন।

এরপর মাশরাফী শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে যান। এ মন্ত্রণালয়ে গিয়ে জেলা সদরের হবখালী আদর্শ কলেজের নির্মাণাধীন একাডেমিক ভবনের ঊর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ, লোহাগড়ার আমাদা আদর্শ কলেজের একাডেমিক ভবন নির্মাণ, নড়াইল সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজে অডিটরিয়াম নির্মাণ, ১০ তলা বিশিষ্ট শতবর্ষ ভবন নির্মাণের জন্য আবেদনপত্র জমা দেন। 

এরপর ছুটে যান দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে। এ মন্ত্রণালয়ে গিয়ে নড়াইল-২ আসনের গরীব দুঃস্থ মানুষের শীত নিবারণে তিন হাজার কম্বল বরাদ্দ, নদী ভাঙন কবলিত এলাকার ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আর্থিক অনুদান বরাদ্দ, ২০০ অসচ্ছল পরিবারের জন্য ২০০টি ঘর বরাদ্দের আবেদন করেন।

পরে ছুটে যান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে। এ দফতরে গিয়ে নড়াইল জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালকের শূন্যপদে দ্রুত কর্মকর্তা পদায়নের আবেদন জানান। 

তারপর মাশরাফী ছুটে যান সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে। দফতরটিতে গিয়ে সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় মন্ত্রী নিজেই ২০০ দরিদ্র-অসহায় রোগীদের চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্য প্রদান ও একটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দেন। এছাড়া নডাইল সদর ও লোহাগড়া উপজেলায় এক হাজার বয়স্ক ভাতা কার্ড ও এক হাজার বিধবা কার্ড বৃদ্ধি করে দেন।  

পরের গন্তব্য হয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে। এই মন্ত্রণালয়ে গিয়ে নড়াইল-২ আসনের অন্তর্গত চারিখাদা ঈদগাহ ময়দানের সীমানা প্রাচীর ও নামাজের স্থান সংস্কারের আবেদন জমা দেন মাশরাফী। 

পরে ছুটে যান অর্থ মন্ত্রণালয়ে। মন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামালের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন। এ সময় মাশরাফীকে তার নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নের বিষয়ে নানাবিধ পরামর্শ দেন মন্ত্রী।

রোববার সকালে ক্রিকেট মাঠের অনুশীলন শেষে সরাসরি সচিবালয়ে যান মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা। তিনি প্রতিটি মন্ত্রণালয়ে নতুন আবেদন করেন। এছাড়া আগের করা বিভিন্ন আবেদনের ফলোআপ ও অগ্রগতি সম্পর্কে খোঁজ নেন। এসব মন্ত্রণালয়ে ঘোরাঘুরির সময় মন্ত্রী ও সচিবরা মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার স্বপ্নের নডাইল বিনির্মাণে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকেএ/আরএ