নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও টাঙ্গুয়ার হাওরে পর্যটক

নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও টাঙ্গুয়ার হাওরে পর্যটক

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:৩৫ ২ আগস্ট ২০২০   আপডেট: ১৬:৪০ ২ আগস্ট ২০২০

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসছেন হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীরা

দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসছেন হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীরা

টাঙ্গুয়ার হাওরসহ সুনামগঞ্জে তাহিরপুরের বিভিন্ন পর্যটন স্পষ্টগুলোতে প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করেই ভিড় করছেন হাজার হাজার পর্যটক ও দর্শনার্থীরা।

সরেজমিনে দেখা গেছে, কোরবানি ঈদে টাঙ্গুয়ার হাওর, ট্যাকের ঘাট এলাকায় শহীদ সিরাজ লেক (নিলাদ্রী লেক), বারেকের টিলা, যাদুকাটা নদী ও শিমুল বাগানে পর্যটকরা আসছেন। স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই পর্যটকদের মাঝে। 

স্থানীয়রা জানায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আশংকায় গত ১৯ মার্চ থেকে পর্যটকদের জন্য নিষিদ্ধ ছিলো তাহিরপুর উপজেলার টাঙ্গুয়ার হাওর, ট্যাকেরঘাট, বারেকের টিলা, যাদুকাটা নদী ও শিমুল বাগান ভ্রমণ। কিন্তু গত এক সাপ্তাহ ধরে প্রশাাসনের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঢাকা, সিলেট, সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহসহ বিভিন্ন জেলা থেকে আসছেন পর্যটকরা। 

নেত্রকোনা থেকে ঘুরতে আসা আল আমিন বলেন, করোনাকালিন সময়ে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও আমরা বন্ধুরা মিলে আমরা দুইটি নৌকা করে প্রায় ২৫ জন ঘুরতে এসেছি। আগেও এসেছিলাম টাঙ্গুয়ার হাওর, শহীদ সিরাজলেক, বারেকটিলা খুব সুন্দর জায়গা। হাওরে জলের খেলা, গাছ-পাখি আর মাছের মেলা একসঙ্গে জল, জোছনা আর পাহাড়ের মেলবন্ধন চোখে পড়ে টাঙ্গুয়ার হাওরে তাই পর্যটকদের প্রিয় স্থান। 

টেকেরঘাট এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা আমিরুল ইসলাম জানান, এক সাপ্তাহ ধরে নৌকা, স্পিটবোড দিয়ে দলবেধে আসছে দেশের বিভিন্ন স্থানের পর্যটক ও দর্শনার্থীরা। কোরবানির ঈদের দ্বিতীয় দিনেও প্রচুর পরিমাণে পর্যটক এসেছে হাওরে আমাদের এলাকায়।   

তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুণা সিন্দু বাবুল চৌধুরী বলেন, এ উপজেলায় করোনার কারণে পর্যটকদের ভ্রমণে সরকারিভাবে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। করোনাকালিন সময়ে যদি এভাবে পর্যটক আসতে থাকে তাহলে আমাদের তাহিরপুর বাসির জন্য করোনা মোকাবিলা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। করোনার এই মহামারির সময়টায় হাওরে পর্যটকদের আসতে আমরা নিরুৎসাহিত করছি।

তাহিরপুরের ইউএনও পদ্মাসন সিংহ বলেন, করোনা সংক্রমণের শুরুতেই করোনা প্রতিরোধ উপজেলার প্রতিটি পর্যটন স্পটে পর্যটকদের আগমণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। এ সত্ত্বেও যারা আসছেন তারা ব্যক্তিগত ভাবেই আসছেন। অভিযান চলাকালে কোনো পর্যটককে পর্যটনস্পট এলাকায় পেলে তাদের আইনের আওতায় জরিমানা করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম