Alexa নিষিদ্ধ যত অদ্ভুতুরে বিষয় (পর্ব-৩) 

নিষিদ্ধ যত অদ্ভুতুরে বিষয় (পর্ব-৩) 

নিয়াজ মাহমুদ সাকিব   ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৪২ ২২ মে ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অদ্ভূত শব্দটি আপেক্ষিকও বটে। হয়তো আপনার কাছে যা কিছু অদ্ভূত, অন্য কারো কাছে তা স্বাভাবিকও হতে পারে। তবে কিছু অদ্ভূত বিষয় কিংবা কার্যকলাপ রয়েছে যা ইতোমধ্যে নিষিদ্ধ হয়েছে দেশে দেশে। চলুন জেনে নেয়া যাক, সেরকমই কিছু নিষিদ্ধ অদ্ভূত-
    
১০. জেসমিন
জেসমিন বিপ্লবের কারণেই পরিবর্তনের দমকা হাওয়া বইছিলো তিউনিসিয়ায়। একটা বিপ্লবে রক্তপাত অস্বাভাবিক কিছু নয় বৈকি, তবে জেসমিন বিপ্লবে রক্তত্যাগের অর্জনই ছিল রক্তপাত আর সকল অনাচারের আপাত অবসান। আর বিশেষ অর্জন ছিল, মাৎস্যন্যায় শাসনামলের ইতি টানা। এই বিপ্লব আবার অনুপ্রাণিত করেছিল বেশ কিছু চাইনিজ বিপ্লবীদের। সমাধান? তৎকালীন চাইনিজ সরকার আন্দোলনকারীদের দমন করে সহজেই সবকিছুর নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছিল এবং একই সাথে চায়না জুড়ে জেসমিন ফুলই নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। এমনকি, যেসব গানের মধ্যে জেসমিন শব্দ আছে, সে গানগুলোকেও বাজেয়াপ্ত করে দেয়া হয়েছে এবং এখনো পর্যন্ত চীনে টেক্সট মেসেজেও জেসমিন শব্দ ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা আছে।
 
৯. পুনর্জন্মলাভ
হয়তো আমাদের অধিকাংশেরই আপাত দুনিয়াতে এ নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই, তবে তিব্বতের বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদের এ নিয়ে বেশ ভুগতেও হয়। আইনটি ছিল মূলত চাইনিজ সরকারের কূটকৌশলেরই বাহ্যিক রূপ, আর পেছনে যে উদ্দেশ্যটা ছিল সেটা ছিল একটা বৃহৎ ষড়যন্ত্রের অংশ। দাবিয়ে রাখার ষড়যন্ত্র। বিশেষ করে বৌদ্ধ সন্ন্যাসীদেরকে নিয়ন্ত্রণে রাখার একটা বিশুদ্ধ প্রয়াস। আর এই আইনটিই ছিল মূলত চাইনিজ সরকারের ত্রূপের তাস, যার উপর ভর করে চায়না সরকার পুরো তিব্বত অঞ্চল জুড়ে দালাই লামার যে প্রভাব,তাই আস্তে আস্তে ধ্বংস করা শুরু করেছিল। আর আইনের ফলে,সেই থেকে চাইনিজ সরকারের পূর্বানুমতি ছাড়া একজন সন্ন্যাসীর জন্য পুনর্জন্মলাভের আকাঙ্ক্ষা প্রকাশ অবৈধ বলে বিবেচিত হওয়া শুরু হয়!
 
৮. হলুদ পোশাক জুজু
প্রিয় হাতাওয়ালা হলুদ সোয়েটারটা পড়তে পারবেননা? দুঃস্বপ্ন! শুধু আপনার হলুদ টিশার্ট টা নয়, হলুদ যেকোনো কিছু, বেল্ট থেকে মাথার ক্যাপ, রিস্টব্যান্ড, এমনকি জুতোর ফিতেও! ২০১১ সালে মালয়েশিয়ার সরকার পুরো হলুদ রংটাকেই অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে যেকোনো পোশাকে ব্যবহার করার জন্য (মালয়েশিয়া অঞ্চলের মধ্যে)। কারণ হলুদ ছিল, কোনো এক বিরোধীদলীয় আন্দোলনকারীদের পোশাক। আর সরকারি এ সিদ্ধান্তটা এ কারণেই একটু বেশি অদ্ভুত যে, হলুদ একই সাথে মালয়েশিয়ার রয়েল কালার তথা আভিজাত্যের প্রতীক(ঐতিহ্যগত দিক বিবেচনায়) এবং হলুদে মালয়েশিয়ানদের মানায়ও বেশ, জনপ্রিয়ও বটে। 
 
৭. ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার
দেশের নাগরিকেরা প্রয়োজনের চেয়ে অতিরিক্ত ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার খাচ্ছে এবং পুষ্টি গ্রহণ করছে, এমন একটা তথ্য ডেনমার্ক সরকারের আমলে আসার পরপরই তারা দেশজুড়ে সব রকমের ফরটিফাইড খাবার নিষিদ্ধ করে দিয়েছে। ঈস্টকে উপজীব্য করে বানানো পণ্য যেমন ওভালটিন, মারমাইট, অতিরিক্ত পুষ্টিসমৃদ্ধ নাস্তার সিরিয়াল যেমন রাইস ক্রিস্পি এবং ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ দুধ ইত্যাদিই ছিল নজরদারিতে রাখার উদ্দেশ্যে প্রথম সারির বিবেচনা। 
 
৬. ভিডিও গেইমস
ভিডিও গেইমস নিয়ে মূলত গ্রিসে কঠোর আইনের বলবৎ হয়েছিল শুধুমাত্র স্লট মেশিন আর অনলাইন জুয়াকে কেন্দ্র করেই। স্লট মেশিনে নিয়ন্ত্রণ আনা সহজ হলেও ইন্টারনেট গ্যাম্বলিং অতটা সহজ ছিলনা। যাই হোক,আসল কাহিনী হলো, কঠোর ওই আইনই অস্পষ্ট ছিল, কোথাও পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করা ছিলনা যে ঠিক কোনটা জুয়া আর কোনটা কোনো ক্ষতি ছাড়া ভিডিও গেইমস। যার কারণ হরহামেশাই কোনো একটা সাইবার ক্যাফেতে ভিডিও গেইমস খেলতে থাকা কোনো কিশোর কিংবা প্রাপ্তবয়স্ককে গ্রেফতার হতে হতো। যদিও একজন গ্রিক বিচারক এই আইনকে অসাংবিধানিক বলে রায় দিয়েছেন, তবুও আইনটি এখনো অস্তিত্বহীন হয়ে যায়নি এবং বলবৎ রয়েছে।
 
ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস