নিজেদের ছানাকে খেয়ে ফেলছে মেরু অঞ্চলের ভাল্লুকরা

নিজেদের ছানাকে খেয়ে ফেলছে মেরু অঞ্চলের ভাল্লুকরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১০:০২ ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১০:১৯ ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

বর্তমানে পৃথিবীর তাপামাত্রা বেড়েই চলছে। পৃথিবীর মেরুতে অবিরাম বরফ গলে যাচ্ছে। বিজ্ঞানীদের মতে, মেরু দেশের বরফ গলে সমুদ্রের পানি উপচে উঠবে। এতে ভেসে যাবে বহু শহর।

পরিবেশ বদলের এই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে পালটে যাচ্ছে সেখানকার স্থায়ী বাসিন্দাদের জীবনযাত্রা। অভিযোজনের লক্ষ্যে অভ্যাস বদলে নিতে হচ্ছে সেসব প্রাণীদের। এদের কাতারে আছে মেরু ভাল্লুক ও পেঙ্গুইন। বেঁচে থাকার তাগিদে মেরু ভাল্লুকের দল খাদ্য হিসেবে নিজেদের সন্তানকেই গ্রহণ করছে।

মস্কোর এক গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মেরু ভাল্লুক বিশেষজ্ঞ ইলিয়া মর্দভিনস্তেভ জানান, মেরু ভাল্লুকরা যে মাংসাশী, তা বহুকাল আগেই প্রমাণিত হয়েছে। কিন্তু বর্তমানের ঘটনা অনেক বিরল। নিজ জাতিকে খাওয়ার প্রবণতা বাড়ছে ওদের মধ্যে। এ বিষয়ে আরো বড় পরিসরে গবেষণা প্রয়োজন।

স্বজাতিকে খাওয়ার প্রবণতার কারণও খুঁজে বের করেছেন গবেষকরা। তাদের মতে, আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে খাবার সংকট দেখা দিয়েছে মেরু প্রদেশে। সাধারণত বরফের নিচে থাকা সিল শিকার করে খায় এরা। কিন্তু বরফ গলে যাওয়ায় সিল সমুদ্রের দিকে চলে যাচ্ছে। ফলে খাদ্য সরবরাহ কমে যাচ্ছে। পূর্ণবয়স্ক ভাল্লুকরা স্ত্রী এবং শাবকদের আক্রমণ করে তাদের মাংসই খাচ্ছে।

তারা আরো জানান, ভবিষ্যতের খাবারের সঞ্চয় হিসেবে এদের মেরে বরফের তলদেশে জমা করে রাখছে ভাল্লুকরা।

এছাড়াও আর্কটিক অঞ্চলে বিপুল পরিমাণ প্রাকৃতিক গ্যাসের ভাণ্ডার উত্তোলনে অভিযান জোরদার করেছে ব্যবসায়ীরা। ফলে সেসব জায়গা থেকে উৎখাত হতে হচ্ছে সিল বা মেরু ভাল্লুকদের। সেটাও খাদ্য সংকটের অপর একটি কারণ বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

জলবায়ু বিপর্যয়ে অভিশাপের মুখে যোগ্যতমের টিকে থাকার নীতিতে নিজেদের সন্তানই খাদ্য হয়ে উঠছে মেরু ভাল্লুকদের কাছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচএফ