নিউজিল্যান্ডে দুই মসজিদে হামলায় নিহত ৪০

আন্তর্জাতিক ডেস্কডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৪৬ ১৫ মার্চ ২০১৯   আপডেট: ১৩:১৩ ১৫ মার্চ ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে হ্যাগলি ওভাল মাঠের খুব কাছের দুটি মসজিদে আততায়ীরা হামলা চালিয়েছে। এ ঘটনায় অন্তত ৪০ জন নিহত হয়েছেন। এছাড়া আহত হয়েছেন প্রায় অর্ধশতাধিক লোক। এতে অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়েরা। তারা  হোটেলে অবস্থান করছেন। - খবর ওটাগো ডেইলি টাইমস।

শুক্রবার জুম্মার নামাজের আগে দেশটির হ্যাগলি ওভাল মাঠের সামনে ডিন এভিনিউয়ের কেন্দ্রীয় ক্রাইস্টচার্চে অবস্থিত আল নূর মসজিদ ও লিনউডের আরেকটি মসজিদে এই হামলার ঘটনা ঘটে। এদিন আল নূর মসজিদে বাংলাদেশ দলের সদস্যরা জুম্মার নামাজ পড়তে যাচ্ছিলেন।

হামলায় অংশ নেয়া আততায়ী ব্রেনটন ট্যারেন্ট। ছবি: সংগৃহীত

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ওটাগো ডেইলি টাইমস জানায়, স্থানীয় সময় ১টা ৪০মিনিটের দিকের এই হামলায় আল নূর মসজিদে ৩০ জন এবং লিনউডে মসজিদে ১০ জন নিহত হন। 

এই হামলায় চারজন অংশ নেন। এদের মধ্যে একজন নারীসহ সন্দেহভাজন সবাইকেই আটক করেছে পুলিশ। আল নূর মসজিদটিতে প্রায় তিনশ মুসল্লি ছিলেন।

এদিকে আল নূর মসজিদে প্রবেশের আগ মুহূর্তে অজ্ঞাত এক নারী টাইগারদের মসজিদে ঢুকতে নিষেধ করেন। তিনি জানান, এখানে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। খেলোয়াড়েরা তখন আতঙ্কিত হয়ে পড়েন এবং দৌড়ে হ্যাগলি ওভালে ফেরত আসেন। এর আগে বাংলাদেশ দল এই মাঠে অনুশীলন করেন। 

আহত এক ব্যক্তিকে হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে। ছবি: সংগৃহীত

এ ঘটনায় গুরুতর আহত বহু মানুষকে হাসপাতালে ভর্তি  করা হয়েছে। মসজিদের আশপাশের দুই কিলোমিটার এলাকা ঘিরে রেখেছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

ইএসপিএন এর এক সাংবাদিক জানিয়েছেন, বাংলাদেশ দলের সদস্যরা নিরাপদে হোটেলে পৌঁছেছেন। সর্বশেষ খবরে বেশ কয়েকটি স্থানে হামলা হয়েছে বলে জানা গেছে। 

হামলার পর পুলিশের সতর্ক অবস্থা। ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ফেসবুক পেজে বলা হয়েছে, বন্দুক হামলার পর নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সব সদস্য নিরাপদে হোটেলে ফিরে এসেছেন। খেলোয়াড় ও টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে বিসিবি যোগাযোগ অব্যাহত রাখছে।

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের মুখপাত্র বলেছেন, ক্রিকেট দলের সদস্যরা নিরাপদে রয়েছেন। তবে তারা মানসিকভাবে আহত হয়েছেন।

এ ঘটনার প্রেক্ষিতে সেখানে উপস্থিত থাকা বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার তামিম ইকবাল নিজের টুইটার একাউন্টে লিখেন, ‘পুরো দল গোলাগুলির হাত থেকে বেঁচে গেলো। খুবই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা, সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ বলেন, ক্রাইস্টচার্চের সব স্কুল বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়া সাধারণ চলাচলের উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি টেস্ট সিরিজের তৃতীয় ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ দল এখন ক্রাইস্টচার্চে অবস্থান করছে। শনিবার বাংলাদেশ সময় ভোরে হ্যাগলি ওভালে স্বাগতকদের বিপক্ষে টাইগারদের খেলতে নামার কথা ছিল।

এদিকে এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার চলতি সিরিজের তৃতীয় টেস্ট ম্যাচটি সমঝোতার ভিত্তিতে বাতিল ঘোষণা করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর