নবজাতককে এনআইসিইউতে রেখে বাবা উধাও, দায়িত্ব নিলেন এসপি

নবজাতককে এনআইসিইউতে রেখে বাবা উধাও, দায়িত্ব নিলেন এসপি

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১২:৩৪ ১৩ জুলাই ২০২০  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বিল পরিশোধ করতে না পেরে নবজাতককে এনআইসিইউতে রেখে পালিয়ে গেছেন বাবা। বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হলে কুমিল্লার এসপি সৈয়দ নুরুল ইসলামের নজরে আসে। এরপরই শিশুর সার্বিক ব্যয়ভার বহনের দায়িত্ব নেন তিনি।

কুমিল্লার একটি বেসরকারি হাসপাতালের এনআইসিইউতে নবজাতককে ভর্তি করে উধাও হয়ে যান বাবা। লক্ষাধিক টাকা বিল পরিশোধের ভয়ে এ হাসপাতালে নবজাতক মেয়ে সন্তানকে দেখতে আসেননি শিশুটির বাবা-মা বা কোনো স্বজনদের কেউ। হাসপাতালে না এলেও টাকার জন্য বিভিন্ন জনের কাছে ছুটে বেড়ান। 

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, ৫ জুলাই দুপুরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সদর উপজেলার আড়াইওরা গ্রামের হতদরিদ্র মিজানুর রহমানের স্ত্রী শিরীন আক্তার দুটি জমজ সন্তানের জন্ম দেন। জন্মের পর একটি শিশু মারা যায় এবং অপর মেয়ে শিশুটির জীবন সংকটাপন্ন হয়ে ওঠে। এমন পরিস্থিতিতে চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন।

কিন্তু হতদরিদ্র ওই পরিবারটির ঢাকায় নিয়ে যাওয়ার আর্থিক জোগান না থাকায় তাকে নগরীর ঝাউতলা এলাকার কুমিল্লা মা ও শিশু স্পেশালাইজড হাসপাতালের এনআইসিইউতে ভর্তি করা হয়। কিন্তু ভর্তির পর থেকে উধাও নবজাতকের বাবা। হাসপাতালে ভর্তির সময় শিশুটির বাবা মিজানুর রহমান যে নম্বর দিয়েছিলেন ওই নম্বরে একাধিকবার যোগাযোগ করেও তাদের সন্ধান পায়নি। এতে অভিভাবকহীন এ শিশুটিকে নিয়ে বিপাকে পড়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কিন্তু মানবিক দায়বদ্ধতা থেকে শিশুটির সার্বিক চিকিৎসা চালিয়ে যান চিকিৎসকরা।

পরে গত ৮ জুলাই কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে খোঁজ নিয়ে শিশুটির মা শিরীন আক্তারকে নবজাতকের বিষয়ে অবগত করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এরপরই হাসপাতালে ছুটে আসেন শিশুটির মা। পরে তিনিও উধাও হয়ে যান।

এসপির মানবিকতার এমন খবরে রোববার দুপুরে হাসপাতালে ছুটে আসেন শিশুটির বাবা-মা ও স্বজনরা। সন্তানকে কাছে পেয়ে তারা আনন্দে আত্মহারা হয়ে ওঠেন। বিকেলে এসপি হাসপাতালে গিয়ে শিশুটির খোঁজ নেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস