নফল রোজায় স্বামীর অনুমতি, যা বলে ইসলাম

নফল রোজায় স্বামীর অনুমতি, যা বলে ইসলাম

গাজী মো. রুম্মান ওয়াহেদ ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:১০ ৩০ মে ২০২০   আপডেট: ১৮:১৬ ৩০ মে ২০২০

স্বামীর আনুগত্য করাকে আল্লাহ জান্নাতে প্রবেশের একটি কারণ বা উপায় হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

স্বামীর আনুগত্য করাকে আল্লাহ জান্নাতে প্রবেশের একটি কারণ বা উপায় হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

যদি কোনো নারী নফল রোজা রাখেন, কিন্তু তার স্বামী বিষয়টি পছন্দ না করেন বা নিষেধ করেন, সে ক্ষেত্রে ওই নারীর করণীয় কি?

হাদিসে এসেছে-

আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত- তিনি বলেন, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেছেন, কোনো স্ত্রী স্বামীর উপস্থিতিতে তার অনুমতি ব্যতীত নফল সওম রাখবে না। (সহিহ বুখারী, হাদিস নম্বর ৫১৯২, হাদিসের মান: সহিহ হাদিস)।

রাসূল (সা.) আরো বলেছেন, যে নারী তার স্বামীর আনুগত্য করবে, অর্থাৎ স্বামীর আনুগত্য করাকে আল্লাহ জান্নাতে প্রবেশের একটি কারণ বা উপায় হিসেবে উল্লেখ করেছেন। সুতরাং স্বামীর আনুগত্যের বিষয়টি ইসলামি শরীয়তের মধ্যে একটি বাধ্যতামূলক বিষয়।

কোনো নারী যদি নফল রোজা রাখেন, কিন্তু তার স্বামী বিষয়টি পছন্দ করেন না বা নিষেধ করেন, তাহলে তার ওপর ওয়াজিব হলো এই নফল সিয়াম ভঙ্গ করা। কারণ, নফল সিয়ামের জন্য যদি স্বামী অনুমতি না দেন, সে ক্ষেত্রে তার জন্য নফল সিয়াম জায়েজ নেই। তাই তিনি স্বামীর অনুমতি নেবেন, স্বামীর অনুমতি সাপেক্ষে সিয়াম পালন করবেন।

আপনার স্বামী যদি নিষেধ করে, তাহলে আপনি নফল সিয়াম ভঙ্গ করবেন। কারণ, এ ক্ষেত্রে স্বামীর হকটা হলো ওয়াজিব। নফলকে আমরা ওয়াজিবের ওপর প্রাধান্য দিতে পারি না। ইসলামি শরীয়তে ওয়াজিবের গুরুত্ব অনেক বেশি।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে