Alexa নদী শুধু জীবন্ত সত্তাই নয়, মাতৃসত্তাও

নদী শুধু জীবন্ত সত্তাই নয়, মাতৃসত্তাও

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ২০:২৫ ২৪ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ২০:৪৫ ২৪ জানুয়ারি ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

শুধু জীবিত সত্তা নয়, নদীকে মাতৃসত্তা বলেও দাবি করেছেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমান হাওলাদার। তিনি বলেন, নদীকে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালত জীবন্ত সত্তা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছেন। আমি মনে করি, নদী শুধু জীবন্ত সত্তা নয়, এটি মাতৃসত্তাও। নিজেরা টিকে থাকতে হলে নদীকে টিকিয়ে রাখতে হবে।

শুক্রবার কুয়াকাটায় দুইদিন ব্যাপী আন্তর্জাতিক পানি সম্মেলনের উদ্বোধনী বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে নদীর আইনগত অধিকারের উপর গুরুত্ব দিয়ে তাকে রক্ষা করতে সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান মজিবুর রহমান হাওলাদার।

তিনি বলেন, আগামী প্রজন্মকে একটি টেকসই, উন্নত সমাজ নিশ্চিত করার জন্য নদীর আইনগত অধিকার প্রতিষ্ঠা, সব ধরনের জটিলতা নিরসন করতে হবে। নদী, পরিবেশ, নিজেদের এবং আগামী প্রজন্মের কথা ভেবে উদ্যোগী হতে হবে। আইনে নদী, জলাধার, পুকুর সব ভিন্ন ভিন্ন সংজ্ঞা রয়েছে। সেগুলো অনুসরণ করতে হবে। নদীর উন্নয়নে সবাইকে সঠিক ও সময়োপযোগী উদ্যোগটি নিতে হবে। 

দুইদিনের এ পানি সম্মেলনে মূল নিবন্ধ পাঠ করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন পানি সম্পদ ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ এবং ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ইমিরিটাস ড. আইনুন নিশাত।

মূল নিবন্ধে ড. ইমতিয়াজ আহমেদ দেশে আন্তর্জাতিক নদীগুলো নিয়ে কূটনৈতিক জটিলতা নিরসনের উপর জোর দিয়ে বলেন, দেশের সব নদী জীবন্ত সত্তা হিসেবে স্বীকৃতি লাভের পর এখন সময় এসেছে নদীকে সব কূটনৈতিক জটিলতা থেকে মুক্ত করার। এটি করা গেলে দেশের মানুষ যেমন উপকৃত হবে, তেমনি ভাবে মৃতপ্রায় নদীগুলোকে ভালো ভাবে বাঁচিয়ে রাখা যাবে।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ অর্থাৎ যখন ঝড় তুফান, বন্যা-জলোচ্ছ্বাস আসে তখন মানুষের মধ্যে যে ভয় সৃষ্টি হয় সেটি তাদের মাঝে থেকে যায়। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে এই ভয় সংক্রমিত হয়। আগে দেখা যেতো দীর্ঘদিন যেমন প্রায় ৫০ বছর পর পর এক একটা প্রাকৃতিক দুর্যোগ আসতো। কিন্তু এখন একটি মানুষ তার জীবনকালেই বেশ কয়েকটা দুর্যোগের মুখোমুখি হয়। এই ভয়টাকে দূর করা জরুরি।

এছাড়া ড. ইমতিয়াজ নদী নিয়ে দেশের সাধারণ মানুষের মানসিকতার পরিবর্তনের জন্য সরকারকে স্কুল শিক্ষা পর্যায় থেকেই কাজ করার পরামর্শ দেন। 

ড. আইনুন নিশাত বলেন, নদীকে বাঁচিয়ে রাখতে রাখতে হলে নদীকে জানতে হবে। নদীর প্রতিটি ধাপ, চরিত্র জানতে হবে। নদীর প্রশস্ততা কমে গেলে অথবা নদী শাসন করা হলে নদীর ভারসাম্য নষ্ট হয়। আর তখনই নদীকে আমরা হারিয়ে ফেলতে বসি।

নদীর জন্য সাধারণ জনগণকে মুখর হতে, প্রতিবাদ জানাতে আহ্বান জানান তিনি। এছাড়া স্থানীয় জনগণের এ সংক্রান্ত জ্ঞান সংরক্ষণের উপরও জোর দেন এই জলবায়ু বিশেষজ্ঞ।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে নদী এবং পানি বিষয়ক তিনটি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হয়। দ্বিতীয় দিনে আরো ছয়টি গবেষণাপত্র উপস্থাপন করা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএইচ