Alexa ‘নদী না বাঁচলে আমরা বাঁচবো না’

‘নদী না বাঁচলে আমরা বাঁচবো না’

রংপুর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৯:৪৩ ১৯ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমান হাওলাদার বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নদী রক্ষার জন্য যুদ্ধে নেমেছেন। সেই যুদ্ধে অবশ্যই আমাদের জয়ী হতে হবে। কারণ নদী না বাঁচলে আমরা বাঁচবো না, আর আমরা না বাঁচলে দেশ বাঁচবেনা।

মঙ্গলবার বিকেলে রংপুর ডিসি সম্মেলন কক্ষে জেলা নদী রক্ষা কমিটির বিশেষ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নদীর পাশেই ধনী শ্রেণীর অবস্থান। তারা কৌশলে তফশিলদারদের হাত করে নদীর জমি দখল করে রেখেছেন। দরিদ্র মানুষরা নদী খাল দখল করেনা। যারা দখল করে নদীর জায়গায় অট্টালিকা গড়ে তুলেছেন তারা সবাই ধনী। রংপুরে যারা নদী, খাল দখল করে রেখেছে তারা যত বড়ই রাঘব-বোয়াল হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

জাতীয় নদী কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, বিএডিসি রংপুরে নদীগুলোকে খাল বানিয়ে নানা ধরনের প্রকল্প বানিয়ে নিজের পকেটে ভরছে। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে অভিযোগ দেয়া হবে। রংপুরের শ্যামা সুন্দরী খালের দখলদারদের তালিকা তৈরি করে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে ডিসিকে নির্দেশ দেন তিনি।

এছাড়াও বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে ঘাঘট নদীর ওপর খেয়া পার্ক নামে হোটেল অবৈধ পাকা বাড়ি নির্মাণসহ অন্যান্য বসতবাড়ির বিরুদ্ধে এক সপ্তাহের মধ্যে কার্যকরী পদক্ষেপ নেয়ার আদেশ দেন। তিনি বলেন, নদীর এক শতাংশ জমিও বন্দোবস্ত দেয়া যাবেনা।

ডিসি আসিব আহসানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় নদী রক্ষা কমিশনের সদস্য শারমীন মুর্শীদি, এডিসি শরীফ মুহম্মদ ফয়েজুল আলম, বাপা কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শরিফ জামিল, রংপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি রশীদ বাবু , পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী মেহেদী হাসান, সহকারী কমিশনার ভুমি ছন্দা পাল, জেলা নদী রক্ষা কমিটির সদস্য বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. তুহিন ওয়াদুদ, জেলা নদী রক্ষা কমিটির সদস্য ও সিনিয়র রিপোর্টার জয়নাল আবেদীনসহ অন্যান্য সদস্যরা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম