নতুন ৮ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইসির এনআইডি তথ্য যাচাই চুক্তি

নতুন ৮ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে ইসির এনআইডি তথ্য যাচাই চুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৩:৫৯ ১৬ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৫:১৮ ১৬ জুলাই ২০২০

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

ব্যাংক, টেলিফোন অপারেটর, মোবাইল ব্যাংকিং প্রতিষ্ঠানসহ সরকারি-বেসরকারি আরো ৮টি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বহুল ব্যবহৃত e-kyc বা ইলেকট্রোনিক্যালি নো ইয়োর ক্লায়েন্ট সেবা প্রদানে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন (ইসি)। 

চুক্তির অংশ হিসেবে এখন থেকে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগের তথ্যভান্ডারে রক্ষিত তথ্য যাচাই করতে পারবে এসব সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন (ইসি) কার্যালয় থেকে অফিসার ইনচার্জ কমিউনিকেশন স্কোয়াড্রন লীডার কাজী আশিকুজ্জামান এতথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, চুক্তিবদ্ধ প্রতিষ্ঠানসমূহ হলো বাংলাদেশ ডেভলপমেন্ট ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল), ইন্টার ক্লাউড লিমিটেড, বাংলাদেশ বর্ডার গার্ড (বিজিবি), রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক), প্রগতি সিস্টেমস লিমিটেড (সিওরক্যাশ), চট্টগ্রাম বন্ধর কর্তৃপক্ষ ও ভূমি মন্ত্রণালয়।

এসব প্রতিষ্ঠান, সেবা প্রদানের ক্ষেত্রে  জাতীয় পরিচয় পত্রে সংরক্ষিত ব্যক্তির তথ্য যাচাই করার জন্য জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ বরাবর আবেদন করবে। জাতীয় তথ্যভান্ডারে সংরক্ষিত ব্যক্তির নাম, ঠিকানাসহ বিভিন্ন তথ্য যাচাই বাছাই শেষে সঠিক ব্যক্তিকে শনাক্ত করে দেবে নির্বাচন কমিশন। 

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রতিষ্ঠানসমূহের এবং বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এই চুক্তির ফলে ভূমি বিরোধ, ভূমির মালিকানা শনাক্ত ও নামজারি করতে সহায়তাসহ এই সংক্রান্ত দীর্ঘদিনের জটিলতা নিরসনে সহায়ক হবে বলে মনে করেন উভয় প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা। এছাড়া আমদানি রফতানির ক্ষেত্রে সঠিক আমাদানি ও রফতানিকারক,  সিএনএফ এজেন্টসহ এই খাতে সংশ্লিষ্ট সঠিক ব্যক্তিকে চিহ্নিত করতে পারবেন। সঠিক ব্যক্তি চিহ্নিত করার ফলে চোরাচালান রোধ করা সম্ভব হবে এবং সরকারের রাজস্ব আয় বাড়বে। অন্যদিকে এনআইডি যাচাইয়ের মাধ্যমে রাজধানীতে ফ্ল্যাট ক্রয় বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিদ্যমান সমস্যার সমাধান হবে। একইভাবে এনআইডি কার্ড যাচাই করে উপযুক্ত নাগরিককে সঠিক সেবা প্রদান এ সচেষ্ট হবে বিজিবি, শিওরক্যাশ, বিটিসিএলসহ অন্যান্য সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান।

২০১২ সালের ২৫ জানুয়ারি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সঙ্গে চুক্তি সম্পাদনের মাধ্যমে e-kyc সেবা চালু করে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ। বর্তমানে ব্যাংক, বীমা, মোবাইল অপারেটরসহ দেশের ১৩৫টি সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে এই সেবা প্রদান করছে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস.আর/এমআরকে/এসআর