নওগাঁয় আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে 

নওগাঁয় আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমার ওপরে 

মান্দা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৩৪ ১৬ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৬:৩৩ ১৬ জুলাই ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

নওগাঁর মান্দা উপজেলার জোতবাজার পয়েন্টে আত্রাই নদীর পানি এখন বিপদসীমার ১৪০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণ ও উজানের পাহাড়ী ঢলে বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে আত্রাই ও ছোট যমুনাসহ প্রায় সবকটি নদীর পানি। বর্তমানে পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। 

উল্লেখ্য, মান্দা উপজেলার বিষ্ণপুর ইউপির চকরামপুর নামক স্থানে বুধবার দুপুরের পর নদীর বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এর পূর্বে মান্দার আত্রাই ও ফকিন্নি নদীর কয়েকটি স্থানে বেড়িবাঁধ ভাঙার কারণে হাজার হাজার মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। 

এছাড়া এ উপজেলার মধ্যে দিয়ে বয়ে যাওয়া আত্রায় নদীর উভয় তীরের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের প্রায় ৫০টি পয়েন্ট ঝুঁকিপর্ণ হয়ে পড়েছে বলেও জানা গেছে।

২০১৭ সালের বন্যায় চকরামপুর ও কয়লাবাড়ি বেড়িবাঁধ ভেঙে যাওয়ার পরে আর মেরামত করা হয়নি। এতে করে নদীর পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সেসব স্থান দিয়ে পানি ঢুকে অসংখ্য মানুষ এখন পানিবন্দী।

এরইমধ্যে নদীর একটি মূলবাঁধসহ আরো সাতটি বেড়ি বাঁধ ভেঙে গেছে। এতে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধগুলো হলো, পার-নুরুল্যাবাদ, পার-নুরুল্যাবাদ  মন্ডলপাড়া, জোঁকাহাট, চকরামপুর, কয়লাবাড়ি, বাইবোল্যা ও পাঁজরভাঙ্গা। 

উল্লেখ্য, গত বুধবার দুপুরের পর আত্রাই নদীর মূলবাঁধটি ভেঙে গেছে। এর ফলে ধান, পাট ও সবজির ক্ষেতসহ ভেসে গেছে অনেক পুকুরের মাছ। বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় দূর্গত এলাকার মানুষ বন্যা নিয়ন্ত্রণ মূল বাঁধে আশ্রয় নিতে শুরু করেছে। গবাদিপশু নিয়ে চরম বিপাকে পড়েছে এসব এলাকার মানুষ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ