Alexa ধর্ষণের বিনিময়ে গৃহকর্মীকে দিতেন পড়ার সুযোগ

ধর্ষণের বিনিময়ে গৃহকর্মীকে দিতেন পড়ার সুযোগ

ঝালকাঠি প্রতিনিধি  ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:২৯ ১৮ আগস্ট ২০১৯  

ছবি: ইন্টারনেট

ছবি: ইন্টারনেট

ঝালকাঠিতে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে তেরোয়ানা শাহ মাহমুদিয়া আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে। 

এ ঘটনায় রোববার দুপুরে ঝালকাঠি থানায় ছাত্রীর বাবা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে অধ্যক্ষ সৈয়দ কামাল হোসেন পলাতক রয়েছেন।

পুলিশ ও নির্যাতিতার পরিবার জানায়, সদর উপজেলার নবগ্রাম ইউনিয়নের তেরোয়ানা শাহ মাহমুদিয়া আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ সৈয়দ কামাল হোসেনের বাসায় চার বছর ধরে গৃহকর্মীর কাজ করতো ওই কিশোরী। তার পড়াশোনার আগ্রহ থাকায় নিজ প্রতিষ্ঠানেই ভর্তি করে দেন অধ্যক্ষ সৈয়দ কামাল হোসেন।  এর বিনিময়ে চার বছর ধরেই ধর্ষণ করতেন তিনি।  বিষয়টি কাউকে না বলার জন্য হুমকিও দেন অধ্যক্ষ।  ওই গৃহকর্মী সম্প্রতি ধর্ষণের ঘটনা তার বাবা-মাকে জানালে রোববার দুপুরে থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

নির্যাতিত কিশোরীর বাবা অভিযোগ করেন, তাদের বাড়ি বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার করপাড়া গ্রামে। দারিদ্রতার কারনে ঝালকাঠির অধ্যক্ষ কামাল হোসেনের বাসায় চার কাজ করতে দেয়া হয়। কিন্তু তিনি আমার মেয়েকে ধর্ষণ করেছেন। এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

ঝালকাঠি থানার ওসি শোনিত কুমার গায়েন বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। ওই ছাত্রীর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর