Alexa ধর্ষণের পর প্রতিবন্ধীকে গলা কেটে হত্যা

ধর্ষণের পর প্রতিবন্ধীকে গলা কেটে হত্যা

সিংগাইর (মানিকগঞ্জ) প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৮:১০ ৬ ডিসেম্বর ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

‘ইমুন আজরাইল আইলো, আমার মাইয়াডারে অত্যাচারও করলো, আবার জবাই কইরা মাইরাও ফালাইলো’ এভাবেই বিলাপ করে বলছিলেন মানিকগঞ্জের সিংগাইরে ধর্ষণের পর হত্যার শিকার এক প্রতিবন্ধীর মা।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার বড় কালিয়াকৈর গ্রামের আমোদ আলীর ছেলে লোকমান হোসেন ওই নারীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যা করে।

ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ জানান, স্বামী পরিত্যক্তা মানসিক প্রতিবন্ধী হয়ে ওই নারী প্রায় ২৫ বছর ধরে বাবার বাড়িতেই থাকতেন। মাঝে-মধ্যেই মাদকাসক্ত লোকমান তাকে উত্ত্যক্ত করতো। বৃহস্পতিবার রাতে পরিবারের লোকজন পার্শ্ববর্তী বাস্তা মাদরাসায় ওয়াজ শুনতে যান। এ সুযোগে লোকমান ওই নারীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণের পর বটি দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে। পরিবারের লোকজন ওয়াজ শেষে ফেরার পথে বাড়ির সামনের সড়কে রক্তমাখা অবস্থায় লোকমানকে দেখতে পায়। পরে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

সিংগাইর থানার ওসি আব্দুস সাত্তার মিয়া বলেন, ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক লোকমানকে আটক ও মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে লোকমান হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার নিহতের ভাবি লোকমানের বিরুদ্ধে থানায় হত্যা মামলা করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর