Alexa দ্বীপ ভ্রমণে সিঙ্গাপুর

দ্বীপ ভ্রমণে সিঙ্গাপুর

ভ্রমণ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৩৭ ১৬ জুলাই ২০১৯  

পুলু লিংগা

পুলু লিংগা

সিঙ্গাপুরের দক্ষিণের দ্বীপপুঞ্জগুলোতে পর্যটকদের জন্য রয়েছে আলাদা চমক। তবে এজন্য পর্যটকদের কাছে থাকতে হবে পর্যাপ্ত টাকা এবং ‘এ টু জেড’ পরিকল্পনা। দ্বীপগুলো সাধারণত একটু অনুন্নত। কিন্তু জায়গাগুলো প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরূপ আঁধার। চলুন এমন তিনটি দ্বীপ সম্পর্কে জেনে নিই-

পুলু লিংগা

দ্বীপটির অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে পাহাড়ের ওপর থেকে নেমে আসা বিশাল ঝরনা। উঁচু পাহাড় থেকে নামে দ্বীপের নিচের দিকে, যা দর্শকের চোখে এক অন্যরকম শোভার সৃষ্টি করে। এই জল মূলত প্রবাহিত হয় শীতকাল আসা পর্যন্ত। নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত আপনি ঝরনার উৎসব দেখতে পাবেন। এই উৎসবটি মূলত কোনো মানুষের উৎসব নয়। বরং এই ঝরনাকে সাজিয়ে এমন একটি রূপ দেয়া হয়েছে যেটাকে দেখলে মনে হবে যেন একটি উৎসব ঘনিয়ে আসছে। এখানে যেতে পারবেন তানজুং পিংয়ের মাথা থেকে সরাসরি যেকোনো ফেরীতে করে।

পুলু লায়ং-লেয়াং

পুলু লায়ং-লেয়াং

স্কুবা ডাইভিং যারা পছন্দ করেন, তাদের বেশ পছন্দ হতে পারে এই দ্বীপ। খুব কম সময়েই এখানে বিরল প্রজাতির সামুদ্রিক জীবন অনুসন্ধান করা যায়। দক্ষিণ চীন সাগরে অবস্থিত মালয়েশিয়া থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে এই উপনিবেশে চলে এসেছে দ্বীপটি। এখানে এসে ডিপ সি ডাইভিংয়ের সঙ্গে উপভোগ করতে পারবেন গভীর সমুদ্রের প্রাচীন প্রবাল আর জলের গভীরের জীবন। সিঙ্গাপুরের কিনাবলু থেকে ফ্লাইটে করে আসতে হয় এখানে। তবে আসার সময় ফেরার ফ্লাইটের টিকিট নিশ্চিত করেই আসা উত্তম।

পুলু বাওয়াহ

এটি একটি আশ্চর্য দ্বীপ। এখানকার জলের উজ্জ্বলতা এবং স্বচ্ছতা এতটাই বেশি যে সামুদ্রিক বন্যপ্রাণী দেখার জন্য পানির নিচে ডুব দেয়ার প্রয়োজন হয় না। শুধুমাত্র সাঁতার কেটেই স্কুবা ডাইভিং উপভোগ করা যায়। এই স্কুবা ডাইভ করতে শারীরিক কসরতের দরকার পড়ে না। সারা পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভ্রমণপিপাসুরা এখানে আসেন স্কুবা ডাইভিং করতে। বিনতেনের তনজুং পিং থেকে একটি ফেরি করে আপনি সরাসরি চলে আসতে পারেন এই দ্বীপে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে

Best Electronics
Best Electronics