দুঃসময়ে কর্মীদের পাশে নেই সীতাকুণ্ড বিএনপি

দুঃসময়ে কর্মীদের পাশে নেই সীতাকুণ্ড বিএনপি

চট্টগ্রাম মহানগর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১০ ১১ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৭:০১ ১১ জুলাই ২০২০

সংগৃহীত

সংগৃহীত

করোনা পরিস্থিতিতে শুরু থেকেই অসহায় কর্মীদের ত্রাণ, নগদ অর্থ, চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতসহ নানাভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে সীতাকুণ্ড উপজেলা আওয়ামী লীগ। কিন্তু বিএনপির মাঝে এর ছিটেফোঁটাও দেখা যায়নি। এ কারণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে দলটির তৃণমূল পর্যায়ের অসহায় কর্মীরা।

কর্মীদের অভিযোগ, দলের প্রয়োজনে নানাভাবে দলকে সহযোগিতা করলেও তাদের দুঃসময়ে দলের পক্ষ থেকে তেমন কোনো সহযোগিতা পাননি।

ক্ষোভ প্রকাশ করে তৃণমূল পর্যায়ের এক কর্মী বলেন, করোনাভাইরাসের প্রভাবে চট্টগ্রামের মধ্যে সীতাকুণ্ড উপজেলার অবস্থা বেশ নাজুক। এমন পরিস্থিতিতে আওয়ামী লীগ তাদের কর্মীদের নানাভাবে সহযোগিতা করলেও খেয়ে-না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে বিএনপির নিম্নবিত্ত পরিবারের কর্মীরা। এ ব্যাপারে উপজেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্র পর্যন্ত বিএনপির নীতি নির্ধারকদের কোনো মাথাব্যথা নেই।

তৃণমূলের ওই কর্মী আরো বলেন, আমরা সারাজীবন দলের হয়ে কাজ করেছি। বিনিময়ে দলের পক্ষ থেকে কি পেলাম? এই দুর্যোগকালীন সময়ে দল কি আমাদের দশ টাকা দিয়ে সহযোগিতা করেছে?

এর জন্য দলের একাধিক জ্যৈষ্ঠ নেতাদের দায়ী করে তিনি বলেন, রাজনীতি সবার জন্য নয়। কেউ রাজনীতি নিয়ে ব্যস্ত, আর কেউ পকেটভারী নিয়ে। যাদের লক্ষ্য পকেটভারী করা, তারা ঠিকই তা করে যাচ্ছেন। না খেয়ে মরতে হবে আমাদের মতো অসহায় কর্মীদের।

সীতাকুণ্ড বিএনপি অভিভাবকহীন উল্লেখ করে তিনি বলেন, একের পর এক ব্যর্থতার কারণে বিএনপি জনপ্রিয়তা হারাচ্ছে। অভিভাবকহীন দলের কাছে এর চেয়ে বেশি কিছু আশা করা যায় না। এভাবে চলতে থাকলে অচিরেই দলটি বিলুপ্ত হয়ে যাবে।

তবে এমন পরিস্থতিতে দলের উচ্চ পর্যায় থেকে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান শুধুই দায় সারানো বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

বিএনপির সীতাকুণ্ড উপজেলা কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক জহুরুল আলম জহুর বলেন, দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে তৃণমূলের কর্মীদের জন্য তেমন কোনো ত্রাণ কিংবা আর্থিক সহযোগিতা আসেনি। আসলে অবশ্যই তারা পেতেন। উপজেলা পর্যায়ের জ্যৈষ্ঠ নেতাদের পক্ষ থেকে তাদের খোঁজখবর রাখা হচ্ছে।

অপরদিকে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল্লাহ আল বাকের ভূঁইয়া বলেন, এটি রাজনীতি করার সময় নয়। এটি কাঁধে কাঁধে মিলিয়ে একে অপরের পাশে দাঁড়ানোর সময়। যা আওয়ামী লীগ করে দেখিয়েছে। আওয়ামী লীগ শুধু নিজেদের নেতাকর্মীতে সীমাবদ্ধ নয়। এ পরিস্থিতিতে সরকারি বরাদ্দের বাইরেও সর্বস্তরের জনসাধারণকে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে দলটি। যা ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

আওয়ামী লীগ ব্যর্থতার রাজনীতি করে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অত্যন্ত সুন্দর ও সাবলীলভাবে করোনা পরস্থিতি সামলে নিচ্ছে দলটি। স্থানীয় ও উত্তর জেলা থেকে শুরু করে কেন্দ্রের জ্যৈষ্ঠ নেতাদের নির্দেশনা মোতাবেক কাজ করে যাচ্ছে সীতাকুণ্ড আওয়ামী লীগ।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস