Alexa দিন কাটে ভাঙন আতঙ্কে!

দিন কাটে ভাঙন আতঙ্কে!

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৫:৩১ ১০ অক্টোবর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

টাঙ্গাইলে যমুনা নদীর পানি কমে যাওয়ায় ও নদী থেকে বালু তোলায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্বপাড়ের বেলটিয়া ও গরিলা বাড়ি এলাকায় তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। বুধবার বিকেলে ভাঙন শুরু হয়ে রাত পর্যন্ত ওই এলাকার জমি, গাছপালা, সড়কসহ প্রায় ২৮টি বাড়ি নদীতে বিলীন হয়েছে। 

হঠাৎ এমন ভাঙনে দিশেহারা হয়ে পড়েছে নদীপারের মানুষরা। ভাঙনের তীব্রতা এতোই বেশি যে মানুষ তাদের বাড়ি ঘর সরানোর সময়টুকুও পাচ্ছে না। ভাঙন রোধে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার দাবি ভাঙন কবলিতদের। 

স্থানীয় এমপি ও টাঙ্গাইল পানি উন্নয়নের উপ-বিভাগীয় কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, ভাঙন প্রতিরোধে জিও ব্যাগ ফেলা হবে।

ওই এলাকার সামাদ, জয়নুল, কালাম মিয়া জানান, বুধবার বিকেল থেকে হঠাৎ করে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্বপারের সেতু বাঁধের বেলটিয়া বাড়ি এলাকায় নদী ভাঙন শুরু হয়। আস্তে আস্তে ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করে। এমন আকস্মিক ভাঙনে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন তারা। ঘর বাড়ি হারিয়ে তাদের মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে।

ফাতেমা বেগম বলেন, আমাদের দুটি ঘর নদীর গর্ভে গেছে। আমরা খুব কষ্ট করে রাত যাপন করছি। এ এলাকায় বাধ হলে পরবর্তীতে আর ভাঙতো না।

শাহজাহান মিয়া বলেন, আমার বোনের বাড়ি নদীতে বিলীন হওয়ায় সকাল থেকে ঘর সরানোর কাজ করছি।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়নের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী মো. আলমগীর হোসেন বলেন, সকালে ভাঙন এলাকা পরিদর্শন করেছি। অতিদ্রুত জিও ব্যাগ ফেলা হবে।

স্থানীয় এমপি হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী বলেন, ডিসেম্বর থেকে স্থায়ী বেরিবাধের কাজ করা হবে। ভাঙনে যারা ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে তাদের দুই বান্ডিল করে ঢেউটিন ও নগদ ছয় হাজার করে টাকা দেয়া হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস