থাকছে না আইয়ুব বাচ্চুর এলআরবি!

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৪৬ ১৫ এপ্রিল ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

গেল বছর ১৮ অক্টোবর মাত্র ৫৬ বছর বয়সে মারা যান উপমহাদেশের অন্যতম সেরা গিটারিস্ট, কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী আইয়ুব বাচ্চু। তাকে হারিয়ে শোকে বিহ্বল হয় বাংলাদেশ। যে শোকের রেশ এখনো রয়ে গেছে বাংলা ব্যান্ড জগতের আকাশে। তিনি মন দিয়ে ভালোবেসেছিলেন দেশ ও দেশের মানুষকে। 

তার গানে শুধু প্রেম নয়, দেশ, মা, মাটির প্রতি ভালোবাসাও উঠে এসেছে। এ দেশের ব্যান্ডসংগীতের এক পুরোধা ব্যক্তিত্ব ছিলেন তিনি। ছিলেন শীর্ষস্থানীয় ব্যান্ড এলআরবির দলনেতা, ভোকাল এবং লিড গিটারিস্ট। গিটার বাজানোর ক্ষেত্রে অনন্য স্টাইল এবং নান্দনিক দক্ষতাগুণে ‘গিটার লিজেন্ড’ খ্যাতিটি তার নামের সঙ্গে জুড়ে গিয়েছিল অনেকদিন আগেই। 

তার মৃত্যুর কিছুদিন পর থেকে ব্যান্ডটি নিয়ে প্রধানতম প্রশ্ন ছিল আবারো মঞ্চে ফিরবে নাকি বিলুপ্ত হয়ে যাবে? এর প্রায় মাস ছয়েক পর গত ৫ এপ্রিলে এলআরবি ভক্তদের মনে সুবাতাস ফিরে আসে। কারণ রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে আনুষ্ঠানিকভাবে পুনর্গঠন করা হয় ব্যান্ড এলআরবির। নতুন লাইনআপে মূল গায়ক হিসেবে যুক্ত হন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী বালাম। 

‘বালাম অ্যান্ড লিগ্যাসি’ ব্যান্ডের সদস্যরা এই ঘোষণার মাত্র ১০ দিনের মাথায় এসে অন্য খবর দিলেন। তারা জানান, এলআরবি নয়, এখন থেকে ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’ নামে মঞ্চে আসবেন তারা। ব্যবহার করা হবে না ‘এলআরবি’ নামটি।

কারণ হিসেবে তারা জানান, এলআরবি ব্যান্ডের প্রাণপুরুষ আইয়ুব বাচ্চু প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা ও সম্মান রেখে তার স্মৃতিকে অম্লান রাখতে আমরা কাজ করে যেতে চাই। তাই এতে বালামকে যুক্ত করা। কিন্তু প্রয়াত আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সদস্যরা এলআরবি নামটি ব্যবহার না করার জন্য আমাদের কাছে বিশেষ অনুরোধ জানিয়েছেন। বসের পরিবারের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা নামটি আর ব্যবহার করবো না। এখন থেকে আমরা ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’ নামে গান পরিবেশন করব।

আইয়ুব বাচ্চু একটি কথা বারবার বলতেন, ‘শো মাস্ট গো অন’। তাই তার পরিবারের অনুরোধে এলআরবি নাম ব্যবহার না করে ও আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি সম্মান জানিয়ে নতুনভাবে কাজ চালিয়ে যাবেন ব্যান্ডের সদস্যরা। এখন থেকে এলআরবি ব্যান্ডের সদস্যরা বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি নামে মঞ্চ মাতাতে আসবেন। ব্যান্ডটির বর্তমান লাইনআপ দাঁড়ালো: বেজ গিটার- স্বপন, গিটার- মাসুদ, ভোকাল ও গিটার- বালাম, ড্রামস- রোমেল ও সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার- শামীম আহমেদ।

১৯৯০ সালের ৫ এপ্রিল আইয়ুব বাচ্চুর হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় এলআরবি। শুরুতে ব্যান্ডটির নাম রাখা হয়েছিল ‘লিটল রিভার ব্যান্ড (এলআরবি)’। ১৯৯৭ সালে নামের পরিবর্তন আসে। রাখা হয় ‘লাভ রান্‌স ব্লাইন্ড (এলআরবি)’। পরবর্তী সময়ে এ নামেই আইয়ুব বাচ্চু ব্যান্ডটিকে আর সমৃদ্ধ করেছেন। দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান, যা বাংলা সংগীতে নতুন অধ্যায় তৈরি করেছিল।

উল্লেখ্য, আইয়ুব বাচ্চুকে বলা হতো ‘কমপ্লিট মিউজিক পারসোনালিটি’। কারণ তিনি একাধারে গায়ক, গীতিকার, সুরকার, সংগীত পরিচালক, সব সংগীত যন্ত্র বাজানো ও গান রেকর্ডিং, মিক্সিং, মাস্টারিংয়ে সমান পারদর্শী ছিলেন। মূলত রক ঘরানার কন্ঠের অধিকারী হলেও আধুনিক গান, ক্ল্যাসিকাল সংগীত এবং লোকগীতি দিয়েও শ্রোতাদের মুগ্ধ করায় দারুণ পারদর্শী ছিলেন তিনি। গান করার পাশাপাশি জনহিতকর নানা কর্মকান্ডের সঙ্গেও সম্পৃক্ত ছিলেন এ গিটার লিজেন্ড। 

ব্যক্তিজীবনেও প্রচন্ড মিশুক, অত্যন্ত বিনয়ী, সদা হাস্যোজ্জ্বল এবং পরোপকারী এই মানুষটি ক্যারিয়ারের শুরু থকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত দেশের ব্যান্ডসংগীতকে মানুষের হৃদয়ে হৃদয়ে পৌঁছে দেয়ার জন্য যে শ্রম দিতে দেখা গেছে তার বর্ণনা কোটি শব্দে লিখেও শেষ করা যাবে না। এক অসীম শূন্যতায় ভাসিয়ে তিনি চলে গেছেন। যার সর্বস্ব জুড়েই কঠিন বেদনার স্রোত। যে স্রোতের ধাক্কায় এবার বিলিন হচ্ছে তার প্রিয় ব্যান্ডটির নাম।যা  শ্রোতা-ভক্তদের জন্য আরেক বিষাদ।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এনএ/টিএএস