তিনযুগ পেরিয়ে ফিরলেন ঘরে, স্ত্রীকে পেতে ফতোয়ার বাধা

তিনযুগ পেরিয়ে ফিরলেন ঘরে, স্ত্রীকে পেতে ফতোয়ার বাধা

নওগাঁ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৪:৪২ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৭:২৫ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: নুরুজ্জামান

ছবি: নুরুজ্জামান

প্রায় তিন যুগ আগে নিখোঁজ হয়েছিলেন নওগাঁর সাপাহারের দক্ষিণ আলাদীপুর গ্রামের নুরুজ্জামান। এতো দীর্ঘ সময় পর বাসায় ফিরে আসায় পরিবারে আনন্দের বন্যা বয়ে যাওয়াটা স্বাভাবিক হলেও বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে গ্রাম্য ফতোয়া। এর কারণে ফিরে আসার তিনদিন পরও স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে এখনও দেখা-সাক্ষাৎ করা সম্ভব হয়নি।

পরিবার ও এলাকাবাসী জানায়, ওই গ্রামের বাঘ রাজ্জাকের ছেলে নুরুজ্জামান ১৯৮২ সালে পারিবারিক দ্বন্দ্বের কারণে স্ত্রী ও সন্তান রেখে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। পরে তার পরিবার তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করে কোথাও না পেয়ে হাল ছেড়ে দেয়। পরবর্তীতে পরিবারের লোকজনের ধারণা সে হয়তো ভারতে গেছে অথবা মারা গেছে। এই ধারণা নিয়ে নুরুজ্জামানের স্ত্রী আরিফন বিবি সে সময় তার গর্ভের সন্তানসহ নাবালক দুই ছেলেকে নিয়ে কৃষ্ণসদা গ্রামে তার বাবার বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেয়। দ্বিতীয় বিয়ে না করেই সেখানে সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়িতেই থাকতেন তিনি। তার সন্তানরা বড় হয় এবং বিয়ে করে মাকে নিয়ে সংসার করতে থাকে। 

এমনি অবস্থায় সোমবার দুপুরে হঠাৎ করে নিখোঁজ হয়ে যাওয়া নুরুজ্জামান ফিরে আসেন। দীর্ঘ ৩৮ বছর পর গ্রামে ফিরে আসায় নুরুজ্জামানকে নিয়ে গ্রামে বেশ হইচই পড়ে যায়। সংবাদ পেয়ে নানা বাড়ি থাকা তার ছেলেরা ছুটে চলে আসে বাবাকে একনজর দেখার জন্য। মুহূর্তে সেখানে বাবা-ছেলের মধ্যে ঘটে এক মিলনমেলা। এই দৃশ্য দেখার জন্য আশপাশের সবাই তাদের বাড়িতে ছুটে আসে। 

কিন্তু বাধা পড়ে স্বামী-স্ত্রীর পুনর্মিলনে। গ্রাম্য মাতব্বরদের ফতোয়ার কারণে একে অপরের সাথে এখনো দেখা করতে পারেনি তারা। গ্রামের লোকজন বলছে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ১২ বছর সম্পর্ক না থাকলে সে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে যায়। এখন তারা আর স্বামী-স্ত্রী নয়। এ কথার ওপর ভিত্তি করে তাদের (স্বামী-স্ত্রী) মধ্যে দেখা কিংবা কথা বলতে দেয়া হয়নি।

নুরুজ্জামানের জানান, সে সময় তিনি তার বাবার ওপর রাগ করে বাড়ি থেকে বের হয়ে গিয়েছিলেন। এরপর সে দীর্ঘদিন রংপুর শহরে বসবাস করেন। ১৯৮৫ সালে আর বাসায় ফিরবে না প্রতিজ্ঞা করে সেখানে দ্বিতীয় বিয়ে করে নতুন করে সংসার শুরু করেন। এরইমধ্যে নিজ বাসায় ফিরতে মন টানলেও বিভিন্ন কারণে তার আসা হয়নি। এখন তিনি দুটি সংসারই রেখে নতুন করে আগের সংসারের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে চান। 

স্ত্রী আরিফন জানান, তিনিও তার স্বামীর সঙ্গে দেখা ও সংসার করতে চান। তবে শরিয়তের কোনো বিধিনিষেধ থাকলে সেগুলো মান্য করেই তিনি স্বামীর সঙ্গে দেখা করবেন।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএস/এসআই