তালেবানদের মুক্তি দেয়নি আফগানিস্তান

তালেবানদের মুক্তি দেয়নি আফগানিস্তান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১১:৩৪ ১৫ মার্চ ২০২০  

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি ও তালেবানরা

আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি ও তালেবানরা

তালেবান বন্দিদের মুক্তির পরিকল্পনা স্থগিত করেছে আফগানিস্তান সরকার। এ সিদ্ধান্ত যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যকার শান্তি চুক্তিতে নাশকতা সৃষ্টি করতে পারে বলে জানিয়েছেন এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

শনিবার আফগানিস্তানের নিরাপত্তা কাউন্সিলের মুখপাত্র জাভিদ ফয়সাল বলেন, তালেবান বন্দিদের তালিকা পর্যালোচনা করতে আরো বেশি সময়ের প্রয়োজন তাই তাদের মুক্তিতে বিলম্ব করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, প্রেসিডেন্টের বর্ণিত বিধিলিপি অনুযায়ী আমরা তালেবানদের মুক্তির প্রক্রিয়াটি শুরু করতে প্রস্তুত রয়েছি। তবে তালেবানরা যদি এই নিশ্চয়তা না দেয় যে তারা আর কখনো লড়াইয়ে ফিরবে না তাহলে আমরা কাউকে মুক্ত দেব না। এক্ষেত্রে তালেবানদের নমনীয়তা প্রদর্শন করতে হবে।

এর আগে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি ঘোষণা করেন, এই সশস্ত্র গোষ্ঠীর সঙ্গে দীর্ঘকাল ধরে চলা বিরোধের অবসানের নিষ্পত্তির প্রয়াস হিসেবে ১,৫০০ তালেবান বন্দিকে মুক্তি দেয়া হবে। গণির বর্ণিত বিধিলিপিতে বলা হয়, তালেবানরা সহিংসতা কমিয়ে দিলে শনিবার থেকে ১,৫০০ বন্দিকে মুক্তি দেয়া হবে। এরপর আলোচনা শুরু হলে আরো ৩,৫০০ বন্দিকে মুক্তি দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

তালেবানরা আফগান সরকারের দেয়া এ প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে তাদের ৫,০০০ বন্দির মুক্তি দাবি করে। এছাড়া কাবুলে স্বাক্ষর হওয়া মার্কিন- তালেবান চুক্তির অন্যতম শর্ত হিসেবে ৫,০০০ বন্দির মুক্তির দাবির কথাও উল্লেখ করে তারা।

এর আগে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি যুক্তরাষ্ট্র ও তালেবানের মধ্যে একটি শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। চুক্তিতে কাবুলের সঙ্গে আলোচনার প্রতিশ্রুতির বিনিময়ে তালেবানদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে ১৪ মাসের মধ্যে আফগানিস্তান থেকে সব বিদেশি সেনাদের সরে যাওয়ার কথা বলা হয়।

তালেবান বন্দিদের মুক্তিতে বিলম্ব হওয়ার বিষয়ে তাদের কাছ থেকে তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে আফগানদের নেয়া এটি এমন একটি পদক্ষেপ, যেখানে গত ১০ মার্চ থেকে শুরু হতে যাওয়া শান্তি আলোচনা চুক্তিকে আটকে দেয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সূত্র- আল জাজিরা

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএমএফ