তারা মাস্টার নয় সেবক, এসিল্যান্ড ইস্যুতে সচিব

তারা মাস্টার নয় সেবক, এসিল্যান্ড ইস্যুতে সচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:০৫ ২৮ মার্চ ২০২০  

ছবি- সংগৃহীত

ছবি- সংগৃহীত

তিন জন বৃদ্ধ নাগরিককে কান ধরানোর জন্য যশোরের মনিরামপুর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাইয়েমা হাসানের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব শেখ ইউসুফ হারুন। এসব কর্মকর্তারা মাস্টার নয়, সেবক- এ কথাও মনে করিয়ে দেন তিনি। 

শনিবার শেখ ইউসুফ হারুন এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। কেউ যেন অকর্মকর্তাসুলভ আচরণ না করেন সে বিষয়ে সব জেলা প্রশাসকদের নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সচিব বলেন, কেউ এ ধরনের আচরণ করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশনা আমরা ডিসিদের দিয়েছি। বলেছি, মনে রাখতে হবে তারা মাস্টার নয়, সেবক। তারা যেন জনগণের সেবা করেন।

এদিকে এ ঘটনার দায়ে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে সাইয়েমা হাসানকে। তাকে বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে সংযুক্ত করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। অফিস খোলার পর তদন্ত করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে। 

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব বলেন, ওই কর্মকর্তা ভুল করেছেন। আমরা তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব; যেন অন্যরা শিখতে পারে।

গতকাল সাইয়েমা হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায়। বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে চিনাটোলা বাজারে অভিযানের সময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে পড়েন প্রথমে দুই বৃদ্ধ।

এর মধ্যে একজন বাইসাইকেল চালিয়ে আসছিলেন। অপরজন রাস্তার পাশে বসে কাঁচা তরকারি বিক্রি করছিলেন। তাদের মুখে মাস্ক ছিল না। এ সময় পুলিশ ওই দুই বৃদ্ধকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করলে সাইয়েমা হাসান শাস্তি হিসেবে তাদের কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। 

শুধু তাই নয়, এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিজেই তার মোবাইল ফোনে এ চিত্র ধারণ করেন। এছাড়া পরবর্তীতে অপর এক ভ্যানচলককে অনুরূপভাবে কান ধরিয়ে দাঁড় করিয়ে রাখেন। রাতে এ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সামলোচনার ঝড় ওঠে। পরে সমালোচনার মুখে সরিয়ে দেয়া হয় তাকে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএইচআর/এসআই