ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে ভিন্ন চিত্র

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে ভিন্ন চিত্র

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

প্রকাশিত: ১৬:১৬ ৩ জুন ২০২০   আপডেট: ২১:১৯ ২৪ জুন ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গণপরিবহন চালু হওয়ার তৃতীয় দিনেও ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে দেখা গেছে ভিন্ন চিত্র। বঙ্গবন্ধু সেতু হয়ে ঢাকাগামী যানবাহন খুব একটা বেশি চলছে না। অন্য যেকোনো সময়ের তুলনায় যানবাহনের সংখ্যা খুবই কম। তবে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা বেশি।

অনেক যানবাহনের যাত্রীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন না। ফলে করোনাভাইরাসে ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীরা যাতায়াত করছে। এ দিকে বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করা হলে যাত্রী না থাকায় লোকসান গুনতে হচ্ছে বলে জানিয়েছে বাস মালিকেরা। 

যাত্রী না থাকায় বুধবার সকাল থেকে টাঙ্গাইল বাসটার্মিনাল থেকে খুব কম বাস ছেড়েছে। তবে যাত্রী ও যানবাহন চালকদের স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে টাঙ্গাইলের পুলিশ সদস্যরা কাজ করছে। 

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাস যাত্রী সজিব মিয়া ও রাসেল রানা জানান, করোনাভাইরাসের কারণে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানো হলেও টাঙ্গাইল থেকে দ্বিগুণ ভাড়া নেয়া হচ্ছে।  বেশিরভাগ যাত্রীরা স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মানছেন না। তারপরেও করোনার ঝুঁকি নিয়ে গণপরিবহনে গন্তব্যে যেতে হচ্ছে।

সোহেল, লতিফ ও রমজান আলী নামে একাধিক বাস চালক জানান, করোনাভাইরাসের কারণে যাত্রীর সংখ্যা কম। প্রতি বাসে অর্ধেক যাত্রী নেয়ার কথা থাকলেও যাত্রী পাওয়া যায় না। ফলে ঢাকা থেকে ঘুরে আসলেও গাড়ির তেল খরচও উঠে না। 

টাঙ্গাইলের ট্রাফিক পুলিশ পরিদর্শক (প্রশাসন) মো. সাজেদুল ইসলাম জানান, নিয়মিত ডিউটির পাশাপাশি গণপরিবহনের যাত্রী ও চালকদের সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করা লক্ষ্যে ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক, সাজেন্টসহ সদস্যরা মাঠে কাজ করে যাচ্ছেন। 

টাঙ্গাইল শহরে তিনটি চেক পোস্টের মাধ্যমে যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে। এ ছাড়াও মহাসড়কের এলেঙ্গা ও মির্জাপুরে চেকপোস্ট রয়েছে।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে/